মজার রান্না ডেস্ক: গরম গরম ধোঁয়া ওঠা ভাত, রকমারি ভর্তা আর সাথে পেঁয়াজ-মরিচ উফফ! ভর্তার বৈচিত্র্যের জন্যে বাঙ্গালিদের তুলনা নেই। তা সে হোক আলু, বেগুন, করল্লা অথবা লাউ, পটলের খোসার, এমনকি ধনেপাতা, ডিম, শুঁটকি বা চিংড়ি ভর্তা বানানোতে জুড়ি নেই আমাদের। আর একেকটি ভর্তার রেসিপি কিন্তু একেকরকম। কোনটায় সরিষার তেল দিলে স্বাদ খুলবে কোনটায় হয়তো লাগবে হালকা লেবুর রস। আর ঝাল এর ব্যাপারটা তো থাকছেই; স্বাদ মতন কম বা বেশি। আজকের আয়োজনে থাকছে বিভিন্ন রকম ভর্তার রেসিপি। চলুন দেখে নেই রেসিপিগুলো আর সেই অনুযায়ী বানিয়ে ফেলি জিভে জল আনা হরেক রকম ভর্তা।

লাউশাক ভর্তা উপকরণ:
লাউয়ের পাতা ৬-৭টা,
নারকেল কুড়ানো ৪ চা চামচ,
সরিষা ২ চা চামচ,
সেদ্ধ কাঁচামরিচ ২টা,

প্রয়োজনমতো লবণ।

প্রণালী:
লাউশাক ভালো করে ধুয়ে সেদ্ধ করুন। শাকের সাথে কাঁচামরিচও সেদ্ধ করুন। শাক সেদ্ধ করে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার নারকেল কুড়ানো, সরিষা, লবণ, সেদ্ধ করা শাক ও কাঁচামরিচসহ পাটায় পানি ছাড়া বেটে ভর্তা তৈরি করুন।

মিষ্টি কুমড়ার ভর্তা উপকরণ:
মিষ্টি কুমড়া ২ কাপ,
লবণ পরিমাণমতো,
পানি ১ কাপ,
ধনেপাতা কুঁচি,
২ টেবিল চামচ,


কাঁচামরিচ কুঁচি ২ টেবিল চামচ,
পেঁয়াজ কুঁচি ৪/১ কাপ।

প্রণালী:
মিষ্টি কুমড়া খোসা ছাড়িয়ে কেটে ধুয়ে পানি দিয়ে সেদ্ধ করে নিন। এবার সিদ্ধ করা মিষ্টি কুমড়ার সঙ্গে সব উপকরণ খুব ভালো করে মেখে নিন। হয়ে গেল মজাদার মিষ্টি কুমড়ার ভর্তা।

টমেটো ভর্তা উপকরণ:
ছোট টমেটো ২৫০ গ্রাম,
পেঁয়াজ মিহি কুঁচি ১ টেবিল চামচ,
শুকনা মরিচ ২টা,
ধনেপাতা কুঁচি ২ টেবিল চামচ,
লবণ পরিমাণমতো,
চিনি ১ চা চামচ,


সরষের তেল ১ টেবিল চামচ,
লেবুর রস ১ টেবিল চামচ।

প্রণালী:
শুকনা মরিচ তাওয়ায় টেলে বিচিসহ গুঁড়ো করে নিতে হবে। টমেটোর গায়ে তেল লাগিয়ে তাওয়ার ওপর ঢাকনা দিয়ে ঢেকে মাঝারি আঁচে চুলায় তুলে সব দিক সমানভাবে পুড়িয়ে নিতে হবে। ঠাণ্ডা হলে খোসা ছাড়িয়ে চটকে পেঁয়াজ, মরিচ, লবণ, তেল, চিনি, লেবুর রস, ধনেপাতা দিয়ে মেখে ভর্তা করতে হবে।

আলু ডিম ভর্তা উপকরণ:
ডিম ২টি,
আলু ১টি (মাঝারি সাইজের),
কাঁচামরিচ কুঁচি ১ চা চামচ,
পেঁয়াজ কুঁচি ১ টেবিল চামচ,
ধনেপাতা কুঁচি ১ চা চামচ,


লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালী:
আলু এবং ডিম সেদ্ধ করে নিন। খোসা ছাড়িয়ে আলু এবং ডিম আলাদাভাবে চটকে নিন। এবার পেঁয়াজ কুচি, লবণ এবং আধা চা চামচ সরিষার তেল দিয়ে ডিম ও আলু ভালোভাবে মেখে ভর্তা তৈরি করুন।

কাচকি মাছ ভর্তা উপকরণ:
কাচকি মাছ এক কাপ,
পেঁয়াজ কুঁচি ১ টেবিল চামচ,
রসুন কুচি ২ চা চামচ,
কাঁচামরিচ ৪টি,
ধনেপাতা কুঁচি ১ টেবিল চামচ,


লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালী:
কাচকি মাছ ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। কাচকি মাছ, পেঁয়াজ কুঁচি, রসুন কুঁচি, কাঁচামরিচ অল্প তেলে কড়াইতে হালকাভাবে ভাজুন। ভাজা হলে লবণ ও ধনেপাতা দিয়ে পাটায় বেটে ভর্তা তৈরি করুন।

কালিজিরা ভর্তা উপকরণ:
কালিজিরার আধা কাপ,
রসুনের কোয়া ২ টেবিল-চামচ,
কাঁচামরিচ ৮টি,
পেঁয়াজ কুঁচি ৪ টেবিল-চামচ,
লবণ পরিমাণমতো,


সরিষার তেল ২ টেবিল-চামচ।

প্রণালী:
রসুন, পেঁয়াজ, কাঁচামরিচ কাঠখোলায় টেলে নিতে হবে। তেল বাদে সব উপকরণ পাটায় বেটে তেল দিয়ে মেখে ভর্তা করুন।

বেগুন ভর্তা উপকরণ:
বড় গোলবেগুন ১টি,
সরিষা বাটা ১ চা চামচ,
নারকেল মিহি বাটা ২ চা চামচ,
টমেটো কুঁচি১ কাপ,
পেঁয়াজ কুঁচি আধা কাপ,
মেথি আধা কাপ,


রাধুনী সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ,
কাঁচামরিচ কুঁচি ২ টেবিল চামচ,
লবণ স্বাদমতো।

প্রণালী:

বেগুনের গায়ে তেল মাখিয়ে পুড়িয়ে নিন। এবার পানিতে রেখে খোসা ছাড়িয়ে মেখে নিন। কড়াইয়ে তেল দিয়ে মেথি ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজ কুঁচি দিন। পেঁয়াজ একটু নরম হলে টমেটো সরিষা, নারকেল, কাঁচামরিচ ও লবণ দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে বেগুন দিন। কড়াইয়ের তলা ছেড়ে এলে এবং একটু আঠালো হলে নামিয়ে নিতে হবে।

করল্লার ভর্তা

খুব মিহি করে কুঁচি করে নিন। এবার করল্লা কুচি চটকে নিয়ে পেঁয়াজ, কাচা মরিচ, লবন এবং তেল দিয়ে ভর্তা তৈরি করুন। আলু ভর্তা আলু আধা কেজি সিদ্ধ করে চটকে নিন। এবার পাত্রে ২ টেবিল চামচ তেল দিয়ে শুকনা মরিচ ভেজে পেঁয়াজ কুঁচি দিন। পেঁয়াজ বাদামী রং হলে পেঁয়াজ মরিচ লবণ দিয়ে চটকে আলু দিন এবার ধনেপাতা কুঁচি দিয়ে মেখে ভর্তা বানিয়ে নিন।

ছুরি শুঁটকি ভর্তা উপকরণ:
ছুরি শুঁটকি ছোট করে কাটা আধা কাপ,
পেঁয়াজ কুঁচি ২ কাপ,
শুকনা মরিচের গুঁড়া ২ টেবিল চামচ,
লবণ পরিমাণমতো,
চিনি আধা চা চামচ,
লেবুর রস ১ চা চামচ,
তেল আধা কাপ,
আদা বাটা আধা চা চামচ,
রসুন বাটা ১ চা চামচ,
ধনে গুঁড়া ১ চা চামচ,
হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ,


তেজপাতা ১টি,
কাঁচামরিচ চার টুকরা করে কাটা ৬টি।

প্রণালী:
শুঁটকি ভালো করে ধুয়ে সিদ্ধ করে বেটে নিতে হবে। তেল গরম করে আদা-রসুন দিয়ে ভালো করে ভুনে শুঁটকি দিয়ে ভুনতে হবে। হলুদ, ধনে, মরিচের গুঁড়া, তেজপাতা, লবণ দিয়ে মাঝারি আঁচে ৮-১০ মিনিট ভুনে পেঁয়াজ দিয়ে ভুনতে হবে। পেঁয়াজ নরম হয়ে এলে চিনি, লেবুর রস, কাঁচামরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নামাতে হবে।

ধনেপাতার চাটনি উপকরণ:
টাটকা ধনেপাতা বড় ২ আঁটি,
রসুন ২ কোয়া,
তেঁতুল ১ টেবিল চামচ।
কাঁচামরিচ ১টি,
চিনি,


লবণ স্বাদমতো।

প্রণালী:
ধনেপাতার কচি ডগা ও পাতা বেছে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখুন। ধনেপাতা, রসুন, কাঁচামরিচ, তেঁতুল, লবণ ও চিনি সব একসঙ্গে মিশিয়ে মিহি করে কেটে নিন। সামান্য ঝাল, মিষ্টি ও টকটক স্বাদ হবে।

মসুর ডালের ভর্তা উপকরণ:
মসুর ডাল ১ কাপ,
পানি ৩ থেকে সাড়ে ৩ কাপ,
রসুন কুঁচি আধা চামচ,
পেঁয়াজ কুচি ১ চা চামচ,
লবণ আধা চা চামচ,


কাঁচামরিচ ফালি ২টি,
তেল ১ চা চামচ।

প্রণালী:
সব উপকরণ দিয়ে ডাল সিদ্ধ করতে হবে। ঘন থকথকে হলে নামাতে হবে।

সরিষা ভর্তা উপরকণ:
লাল সরিষা ৪ টেবিল চামচ,
কাঁচামরিচ ১টি,


লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালী:
সরিষা ভালো করে বেছে ধুয়ে কাঁচামরিচ এবং লবণ দিয়ে শিলপাটায় বেটে নিন।

ভর্তা-ভাতে হোক আজকের আয়োজন