মজার রান্না ডেস্ক: মাংসের মধ্যে মুরগীর মাংস সবচাইতে সুস্বাদু এবং সবচাইতে বেশি স্বাস্থ্য সম্মত। নিয়মিতই সবাই মুরগির মাংস খেয়ে থাকি। আজকে ৫টি সুস্বাদু রান্নার রেসিপি দিব। এটি পড়ে আরো মজার কিছু আইটেম রান্না করতে পারবেন। খাবারে মাঝে মাঝে বৈচিত্র আনার জন্য এ পোস্টটি আপনার জন্য অনেক কাজে লাগবে।

১. ঝাল ফ্রেইজি

যা যা লাগবে:
ছোট করে কাটা মুরগির মাংস ৫০০ গ্রাম,

টমেটো কুচি ১ কাপ,

টমেটো সস আধা কাপ,

চিলি সস ৩ টেবিল চামচ,

লবণ পরিমাণমতো,

কাঁচা মরিচ ফালি ৪টি,

রসুন বাটা ১ চা চামচ,

আদা বাটা ২ চা চামচ,

সয়াবিন তেল ১ কাপের চার ভাগের এক ভাগ,

টকদই ৪ টেবিল চামচ,

ভাঁজ খোলা পেঁয়াজ ১ কাপ,

মরিচ গুঁড়া ২ চা চামচ,

তেজপাতা ২টি,

ধনেপাতা কুচি পরিমাণমতো।

রান্নার প্রক্রিয়া:
১. কড়াইয়ে তেল গরম করে তেজপাতাসহ সব মসলা দিয়ে কষিয়ে টমেটো কুচি দিন।

২. মুরগির মাংস ও টকদই দিয়ে কষিয়ে পেঁয়াজ দিয়ে ঢেকে হালকা আঁচে দিন।

৩. মাংস সিদ্ধ হলে টমেটো সস, চিলি সস, লবণ, কাঁচা মরিচ ফালি, ধনেপাতা কুচি দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

২. মুরগীর মাংসের টিক্কা

যা যা লাগবে:
মুরগির মাংসের কিমা ২ কাপ,

পেঁয়াজ বাটা আধা কাপ,

কাঁচা মরিচ ৩টি,

রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ,

আদা বাটা ২ টেবিল চামচ,

সয়াবিন তেল ১ কাপের চার ভাগের এক ভাগ,

ঘি ৩ টেবিল চামচ,

টকদই আধা কাপ,

পেঁয়াজ বেরেস্তা আধা কাপ,

গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ,

কাজু ও পোস্ত বাটা একসঙ্গে মিলিয়ে ৩ টেবিল চামচ,

লবণ পরিমাণমতো।

রান্নার প্রক্রিয়া:

১. মুরগির কিমা, লবণ, আদা বাটা দিয়ে একসঙ্গে মেখে ছোট ছোট মার্বেলের মতো বল করে ২০ মিনিট রেখে দিন।

২. এবার কড়াইয়ে তেল দিয়ে পেঁয়াজ বাটা, রসুন বাটা, আদা বাটা, কাজু ও পোস্ত বাটা দিয়ে মসলা ভুনে বলগুলো দিন। সঙ্গে দই দিয়ে কষান। পানি দেওয়া যাবে না।

৩. ঘন হয়ে এলে কাঁচা মরিচ, ঘি, গরম মসলা গুঁড়া ও পেঁয়াজ বেরেস্তা দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

৩. মোসাল্লাম

যা যা লাগবে:

এক কেজি ওজনের আস্ত মুরগি ১টি,

পেঁয়াজ বাটা ১ কাপ,

কাঁচা মরিচ ৫টি,

রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ,

আদা বাটা ৩ টেবিল চামচ,

ধনে গুঁড়া ২ চা চামচ,

সয়াবিন তেল বা ঘি ১ কাপ,

ঘি ৩ টেবিল চামচ,

দই আধা কাপ,

পেঁয়াজ বেরেস্তা আধা কাপ,

গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ,

কাজু ও পোস্ত বাটা ৩ টেবিল চামচ,

কিশমিশ বাটা ২ টেবিল চামচ,

কেওড়া পানি ১ চা চামচ,

আলু সিদ্ধ ২টি,

ডিম সিদ্ধ ২টি,

কাজু ও পেস্তা কুচি মিলিয়ে একসঙ্গে ৩ টেবিল চামচ,

লবণ পরিমাণমতো।

রান্নার প্রক্রিয়া:

১. মুরগির ভেতরটা ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন।

২. সিদ্ধ ডিম ও আলু সামান্য লবণ দিয়ে ভেজে নিন।

৩. এবার ডিম ও আলু মুরগির পেটের ভেতর ঢুকিয়ে হাত, পা ও পেট ভালো করে সেলাই করে হালকা ভেজে নিন।

৪. ওই তেলে সব মসলা কষিয়ে নিন।

৫. মসলা কষানো হলে মুরগি দিন। অল্প অল্প করে দই দিন। মাখা মাখা হয়ে এলে কাজু ও পেস্তা কুচি, পেঁয়াজ বেরেস্তা, কাঁচা মরিচ ও কেওড়া দিয়ে নামিয়ে নিন।

৪. সুস্বাদু কাবাব

যা যা লাগবে:
মুরগির মাংসের কিমা ২ কাপ,

কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ,

রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ,

আদা বাটা ১ টেবিল চামচ,

সয়াবিন তেল ১ কাপের চার ভাগের এক ভাগ,

টকদই ৪ টেবিল চামচ,

পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ,

কাজু কুচি ১ টেবিল চামচ,

পেস্তা কুচি ১ টেবিল চামচ,

কিশমিশ কুচি ১ টেবিল চামচ,

জিরা, ধনে, গরম মসলা একসঙ্গে টালা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ,

টোস্টের গুঁড়া পরিমাণমতো,

ডিমের সাদা অংশ ৩টি,

লবণ পরিমাণমতো।

রান্নার প্রক্রিয়া:
১. মুরগির মাংসের কিমার সঙ্গে টোস্টের গুঁড়া, ডিমের সাদা অংশ ও সয়াবিন তেল ছাড়া সব উপকরণ মেখে চপের আকারে গড়ে নিন।

২. ডিমের মধ্যে চুবিয়ে টোস্টের গুঁড়ায় গড়িয়ে ডুবো তেলে বাদামি করে ভেজে নিন।

৫. চাইনিজ সিজলিং

যা যা লাগবে:
হাড় ছাড়া মুরগির মাংস ৫০০ গ্রাম,

ভাঁজ খোলা পেঁয়াজ ১ কাপ,

মাখন ৩ টেবিল চামচ,

কাঁচা মরিচ ৩টি,

রসুন কুচি ৩ টেবিল চামচ,

আদা কুচি ২ টেবিল চামচ,

ময়দা ৪ টেবিল চামচ,

ডিমের সাদা অংশ ২টি,

সয়াবিন তেল আধা কাপ,

সিজলিং ডিশ ১টি,

টমেটো সস ২ টেবিল চামচ,

চিলি সস ৩ টেবিল চামচ,

লবণ পরিমাণমতো।

রান্নার প্রক্রিয়া:
১. মুরগির মাংস আঙুলের মতো লম্বা করে কেটে নিন। মাংসের সঙ্গে লবণ, ডিমের সাদা অংশ ও ময়দা একসঙ্গে মেখে ডুবো তেলে ভেজে নিন।

২. কড়াইয়ে অল্প তেল দিয়ে রসুন কুচি ভেজে পেঁয়াজ ও মাংস দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে লবণ, কাঁচা মরিচ, টমেটো সস ও চিলি সস দিয়ে নামিয়ে নিন।

৩. সিজলিং ডিশ গ্যাসের চুলায় ৩০ মিনিট গরম করুন। চুলা থেকে নামিয়ে বাটার ব্রাশ করে মাংসের মিশ্রণ ঢেলে পরিবেশন করুন।