মজার রান্না ডেস্ক: পনির কত কাজেই না দরকার হয়। রাস্তার ধারে হাজার রকমের পনির নিয়ে বসে থাকে বিক্রেতারা। কিন্তু সব সময় তো আর বাইরে গিয়ে কেনার সময় থাকে না। তাছাড়া বাজারের পনির কতটা স্বাস্থ্যকর তাও বিবেচনার বিষয়। তাই খুব কম সময়ে আর স্বল্প খরচে নিজেই ঘরে বসে তৈরি করে নিন পনির আর সংরক্ষণ করুন বেশ কিছুদিন।

উপকরনঃ

* গরুর দুধ- ৮ কাপ

* লেবুর রস- ১/৪ কাপ

* পাতলা সুতি কাপড়

* লবণ (ইচ্ছামত)

প্রণালীঃ

একটি বড় পাত্রে মাঝারী আঁচে দুধ জ্বাল দিন।

জ্বাল দেয়ার সময় একটু পর পর দুধ নাড়তে হবে।

নতুবা দুধ পুড়ে যেতে পারে।

এবার লেবুর রস দিয়ে, চুলার আঁচ কমিয়ে নাড়তে হবে।

এসময় দেখা যাবে, দুধ কিছুটা ছাড়া ছাড়া হয়ে গিয়েছে।

বেশ কিছুক্ষন পর দুধ ছানা হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে, পাতলা সুতি কাপড়ে ঢেলে ঠান্ডা পানি ঢেলে ছানাগুলোকে ভালো করে ধুয়ে নিন যেন লেবুর রস ধুয়ে চলে যায়।

এরপর লবণ যোগ করুন স্বাদমত।

কতটা লবণ খেতে চান তার ওপরে নির্ভর করে লবণ দিতে হবে। তবে খুব বেশি না দেয়াই ভালো, কেননা পরে আবার দিতে হয়।

লবণ দিয়ে ছানাকে মাখিয়ে ছানা সহ কাপড়টিকে খুব শক্ত করে প্যাচ দিয়ে চিপে, পানি বের করে নিন।

এরপর একটি বাঁশের বা প্লাস্টিকের ঝুড়িতে ছানা ঢেলে হাত দিয়ে ভালোভাবে চেপে দিতে হবে ও পরে ভারী কিছু দিয়ে চাপা দিয়ে রাখতে হবে যেন সব পানি ঝরে যায়।

সব পানি ঝরে গেলে ৪/৫ ঘণ্টা পর পনিরের বলটিকে ঝুড়ি থেকে বের করে ফ্রিজে রেখে দিন।

পনির জমে গেলেই পরিবেশন করা যায়।

তবে সঠিক স্বাদ পেতে, পনির তৈরির কয়েক ঘণ্টা পর পনিরটি বেশ জমে গেলে ঝুড়ি থেকে বের করে, এর গায়ে কাঠি দিয়ে কিছু ছিদ্র করে নিন।

তারপর পনিরের সম্পূর্ণ শরীরে ভালো করে লবণ মাখিয়ে আবার ঝুড়িতে ভরে ফেলুন।

এরপর ঝুড়িসহ ফ্রিজে রেখে দিন। লবণ বেশি খেতে চাইলে পরপর কয়েকদিন এভাবে লবণ মাখিয়ে দিতে হবে পনিরকে।

উল্লেখ্য, লবণের প্রলেপ পনিরে ফাঙ্গাস জমা থেকে রক্ষা করে। পনির তৈরির ২/৩ দিন পর খেলে পনিরের আসল স্বাদ পাওয়া যাবে।