মজার রান্না ডেস্ক: তরকারি যত ভালো করেই রান্না করা হোক না কেন লবণ যদি বেশি বা কম হয় তাহলে তা বিস্বাদ । লবণ বেশি হয়ে গেলেও সে তরকারি মুখে তোলা যায় না কোনো মতেই। এমন পরিস্থিতি হতেই পারে । সে ক্ষেত্রে কী করণীয় । আসুন জেনে নেয়া যাক।

কাঁচা আলুর টুকরা :

তরকারিতে নুন বেশি মনে হলে কয়েক টুকরা কাঁচা আলু যোগ করুন । তরকারি থেকে অতিরিক্ত লবণ শোষণ করবে আলুর টুকরাগুলো । তরকারিতে ২০ মিনিট পর্যন্ত রাখতে হবে আলু । আলু দেওয়ার আগে খোসা ছাড়িয়ে ধুয়ে নিতে হবে ।

ময়দার বল :

নুন বেশি হলে তরকারির পরিমাণের ওপর নির্ভর করে ময়দার বল তৈরি করে তরকারির মধ্য ছেড়ে দিতে পারেন । সাধারণত দু-তিনটি বল দিলেই কাজ হয় । ময়দা সেদ্ধ করে বা কাঁচা ময়দার বল তৈরি করেও তরকারিতে দিতে পারেন । অবশ্য খাবার পরিবেশনের সময় ওই বল সরিয়ে ফেলতে হবে ।

ক্রিম :

তরকারিতে নুনের পরিমাণ কমাতে তাতে ক্রিম যুক্ত করতে পারেন । এতে তরকারিতে ক্রিমভাব আসবে এবং অতিরিক্ত লবণাক্ততা দূর হবে ।

সেদ্ধ আলু :

তরকারিতে নুন বেশি হলে আলু সেদ্ধ করে তার মধ্যে দিতে পারেন । এতে ওই আলু তরকারি হয়ে যাবে । পুরোনো তরকারিতে নতুন স্বাদ আসবে ।

দই :

তরকারিতে যদি নুন একটু বেশি মনে হয় , তবে এক টেবিল চামচ দই যুক্ত করতে পারেন । এতে লবণাক্ততা কমবে এবং স্বাদ বাড়বে ।

দুধ :

দইয়ের মতোই কাজ করে দুধ । এটিও তরকারিতে লবণাক্ততা দূর করে পুরো স্বাদে ভারসাম্য রক্ষা করতে পারে ।

পেঁয়াজ :

কাঁচা বা ভাজা দুই রকম পেঁয়াজ ব্যবহার করতে পারেন । যদি কাঁচা পেঁয়াজ ব্যবহার করেন , তবে দুই টুকরা করে কিছুক্ষণ তরকারিতে রেখে সরিয়ে ফেলুন । এতে অতিরিক্ত লবণ দূর হবে । আর ভাজা পেঁয়াজ ব্যবহার করলে তরকারিতে লবণ দূর হওয়ার পাশাপাশি স্বাদ বাড়বে ।

ভিনেগার ও চিনি :

তরকারিতে স্বাদ ঠিক রাখতে এক টেবিল চামচ ভিনেগার ও এক টেবিল চামচ চিনি যোগ করতে পারেন ।টক ভিনেগার ও মিষ্টি চিনি তরকারিতে যোগ করার ফলে স্বাদে ভারসাম্য আসবে ।