মজার রান্না ডেস্ক: আপনাদের জন্য এখন দেওয়া হচ্ছে একটি অনেক দরকারি টিপস। অনেক দিন রেখে দেওয়ার পর রসুন শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যায় আর পেঁয়াজও পচে যায়। যদি আমরা রসুন ও পেঁয়াজ ভালো উপায়ে সংরক্ষণ করতে পারি, তাহলে এমন সমস্যায় আর পড়তে হবে না। দীর্ঘদিন পেঁয়াজ ও রসুন ভালো রাখবেন কীভাবে, সে সম্বন্ধে কিছু পরামর্শ দেওয়া হয়েছে এই টিপসে। দেখে নিন-

যা যা প্রয়োজন:

ময়লা এবং দাগ ছাড়া ভালো মানের রসুন ও পেঁয়াজ;

কাগজ ছিদ্র করার যন্ত্র (পাঞ্চ মেশিন);

বাদামি রঙের কাগজের ব্যাগ;

ক্লিপ অথবা রশি, যা দিয়ে ব্যাগের মুখ বন্ধ করা যাবে।

যেভাবে করবেন:

১. প্রথমে পুরো কাগজের ব্যাগ ছিদ্র করে নিন। নিজের ইচ্ছামতোই ছিদ্র করতে পারেন। তবে একটু ফাঁক রেখে ছিদ্র করুন। কাগজের ব্যাগটি ভাঁজ করে এর পর যন্ত্র দিয়ে ছিদ্র করুন। এতে সমানভাবে ছিদ্র হবে। আর দুটো ছিদ্রের জায়গাও থাকবে। তা না হলে দুটো ছিদ্র পর পর হয়ে গেলে বড় ছিদ্র হয়ে যেতে পারে। দুটি ছিদ্রের মধ্যে এক ইঞ্চি পরিমাণ ফাঁক থাকলেই হবে। এই ছিদ্র ব্যাগের মধ্যে বাতাস প্রবেশ করতে সাহায্য করবে।

২. এবার এই ব্যাগের মধ্যে পেঁয়াজ ও রসুন রাখুন। অর্ধেকটা ভরে রাখুন। এর পর ব্যাগের মুখটা ভাঁজ করে ক্লিপ অথবা রশি দিয়ে ভালো করে বেঁধে নিন।

৩. এবার আগের জায়গায় ব্যাগটি রেখে দিন। তবে অনেক কিছুর সঙ্গে রাখাই ভালো। রুমের তাপমাত্রায় এমন জায়গায় রাখুন, যাতে ব্যাগের ভেতরে বাতাস প্রবেশ করতে পারে।

এভাবে প্রায় তিন মাস পর্যন্ত পেঁয়াজ ও রসুন ভালো থাকবে। যদি আপনি সঠিক উপায়ে এগুলো সংরক্ষণ করতে পারেন, তাহলে এর স্বাদ নতুনের মতো থাকবে এবং পচে যাবে না।

পরামর্শ:

পেঁয়াজ ও রসুন অন্ধকার, ঠান্ডা (ফ্রিজে না) এবং শুকনো জায়গায় বেশি ভালো থাকে।

৬৫ থেকে ৭০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় রেখে দিলে তিন মাসের বেশি সময় পেঁয়াজ ও রসুন ভালো থাকবে।

ঠান্ডা, অন্ধকার বেইজমেন্টেও এগুলো অনেক দিন ভালো থাকে।

পেঁয়াজ কখনোই বেশিদিন ফ্রিজে রাখবেন না। এতে পেঁয়াজের স্বাদ এবং কার্যকারিতা নষ্ট হয়ে যায়।

প্লাস্টিকের ব্যাগে কখনোই পেঁয়াজ ও রসুন রাখবেন না। বাতাস প্রবেশ না করার কারণে এগুলো পচে যেতে পারে।

আলুর সঙ্গে পেঁয়াজ রাখবেন না। এতে দুটোই অনেক দ্রুত নষ্ট হয়ে যাবে।