মজার রান্না ডেস্ক: আপনাদের জন্য দেওয়া হচ্ছে একটি অনেক মজার খাবারের রেসিপিগুচ্ছ। এটি হলো এক সাথে ১৮টি ডাল ভুনার রেসিপি। তাহলে দেখে নিন এক সাথে ১৮টি ডাল ভুনার রেসিপি দিয়ে তৈরি রেসিপিগুচ্ছটি।

১. পাঁচমিশালি ডাল ভুনা

উপকরণ :

ডাল মেশানো ১ কাপ,

তেল ২ টেবিল চামচ,

লবণ স্বাদ অনুযায়ী,

আদাবাটা আধা চা চামচ,

পেঁয়াজকুচি ২ টেবিল চামচ,

হলুদ গুঁড়া কোয়ার্টার চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ,

মরিচ ২-৩টি,

রসুনবাটা আধা চা চামচ,

পানি পরিমাণ মতো।

প্রণালী:
ডাল ধুয়ে নিন। এবার হলুদ-মরিচ গুঁড়া, লবণ ও আদা-রসুন বাটা দিয়ে সেদ্ধ করুন।

ডাল ঘুটে সামান্য পানি দিয়ে ১০ মিনিট রান্না করুন।

এবার কাঁচামরিচ দিয়ে ৫ মিনিট রান্না করে নিন।

অন্য পাত্রে তেল দিয়ে পেঁয়াজকুচি দিয়ে দিন।

ভাজা ভাজা হলে তাতে ডাল দিয়ে দিন।

এবার ৫ মিনিট রান্না করে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

২. টমেটো ডাল

উপকরণ :

মসুরের ডাল ২৫০ গ্রাম,

টমেটো ২০০ গ্রাম,

পেঁয়াজ টুকরো করা আধা কাপ,

কাঁচামরিচ ফালি করা ৩-৪টি,

ধনেপাতাকুচি ২ টেবিল চামচ,

রসুন টুকরো ১ টেবিল চামচ,

লবণ স্বাদ অনুযায়ী এবং সরিষার তেল পরিমাণ মতো,

হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ,

পানি পরিমাণ মতো।

প্রণালী:
মসুরের ডাল পানি দিয়ে ধুয়ে রাখুন।

একটি কড়াইতে সরিষার তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজের টুকরো ভেজে, মসুরের ডাল, রসুন টুকরো, হলুদগুঁড়া এবং স্বাদ অনুযায়ী লবণ দিয়ে অর্ধেক রান্না করে তাতে টুকরো টমেটো, কাঁচামরিচ ফালি, ধনেপাতাকুচি এবং সামান্য পানি দিয়ে কিছুক্ষণ রান্না করে ডাল ঘন হয়ে এলে তা নামিয়ে পরিবেশন করুন।

৩. ডাল ডিম কারি

উপকরণ :

ডিম ৮টি,

ছোলার ডাল দেড় কাপ,

পেঁয়াজকুচি কোয়ার্টার কাপ,

আদা বাটা ২ চা চামচ,

রসুন বাটা ১ চা চামচ,

হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

ধনে গুঁড়া ২ চা চামচ,

জিরা গুঁড়া ২ চা চামচ,

তেজপাতা ১টি,

চিনি ১ চা চামচ,

তেল ১ কাপের তিন ভাগের এক ভাগ,

ঘি ২ টেবিল চামচ,

জিরাটালা গুঁড়া ১ চা চামচ,

দারচিনি গুঁড়া আধা চা চামচ,

লবণ পরিমাণ মতো।

প্রণালী :
ছোলার ডাল ৫ কাপ পানিতে সেদ্ধ করুন। ডিম নরম করে সেদ্ধ করুন।

তেল গরম করে পেঁয়াজকুচি, তেজপাতা ও দুটি কাঁচামরিচ দিয়ে হালকা বাদামি করে ভাজুন।

পৌনে এক চা চামচ টালাজিরা, দারচিনি, অন্যান্য মসলা এবং আধাকাপ পানি দিয়ে কষান।

ডাল, লবণ ও চিনি দিয়ে অল্প কষিয়ে ডিম ও ৪টি কাঁচামরিচ দিয়ে ঢেকে ২-৩ মিনিট সেদ্ধ করুন।

বেশি ঘন হলে ১-২ কাপ পানি দিন।

ফুটে উঠলে ২ টেবিল চামচ ঘি, বাকি টালাজিরা এবং দারচিনির গুঁড়া দিয়ে নামান। এরপর পরিবেশন করুন।

৪. লাউ ডাল

উপকরণ :

একটি মাঝারি লাউয়ের অর্ধেক টুকরো করা,

মসুর ডাল ২৫০ গ্রাম,

হলুদ গুঁড়া অর্ধেক চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া অর্ধেক চা চামচ,

জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ,

লবণ স্বাদ অনুযায়ী,

কাঁচামরিচ আস্ত ৪-৫টি,

ধনেপাতাকুচি ১ টেবিল চামচ,

রসুন বাটা ১ চা চামচ

তেল পরিমাণ মতো।

প্রণালী:
প্রথমে লাউ ও মসুর ডাল আলাদা করে ধুয়ে রাখুন।

একটি পাতিলে তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজের টুকরো দিয়ে হালকা ভেজে একে একে তাতে উপকরণ দিয়ে ভালোভাবে কষিয়ে (মসুর ডাল ও লাউ ছাড়া) নিন।

মসলা কষানো হয়ে গেলে তাতে মসুর ডাল দিয়ে আবার কষিয়ে সামান্য পানি দিয়ে ঢেকে সেদ্ধ করে তাতে টুকরো করা লাউ দিয়ে আবার ঢেকে রান্না করুন।

প্রায় ২০ মিনিট লাউডাল বেশ মাখা মাখা হয়ে এলে তাতে জিরা গুঁড়া, কাঁচামরিচ ও ধনেপাতাকুচি দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

৫. ঝাল মশলায় বুটের ডাল

উপকরণ :

-বুটের ডাল ২ কাপ

-পেয়াজ কুচি এক কাপ

-পেয়াজ বাটা ১ চা চামচ

-আদা বাটা ১ চা চামচ

-রসুন বাটা ১ চ চামচ

-জিরা গুড়া ১ চা চামচ

-ধনে গুড়া ১ চ চামচ

-লাল মরিচ গুড়া ১ চা চামচ

-হলুদ গুড়া আধা চা চামচ

-টমেটো সস ২ টেবিল চামচ

– গরম মশলা আধা চা চামচ

-ভাজা জিরা গুড়া ১ চা চামচ

-কাঁচা মরিচ ৪/৫ টা

-লবন স্বাদ অনুযায়ী

-তেল ১/৪ কাপ

-পানি পরিমানমতো

প্রণালী :
ডাল ধুয়ে একটা পাত্রে ভিজিয়ে রাখুন।

একটি পাত্রে বা প্রেসার কুকারে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি বেরেস্তা করে অর্ধেক টা তুলে রাখুন রাখুন।

এবার বাকি বেরেস্তায় সব বাটা মশলা দিয়ে কিছুক্ষণ কষানোর পর মরিচ গুড়া, হলুদ গুড়া, ধনে গুড়া ও জিরা গুড়া দিয়ে ভাল করে কষিয়ে নিন।

এবার ডাল দিয়ে দিন।মাঝারি আঁচে কিছুক্ষণ কষিয়ে টমেটো সস, গরম মশলা ও লবন দিয়ে ভালোভাবে নেড়ে দেড়/দুই কাপ পানি দিয়ে ঢাকনা দিন।

১৫/২০ মিনিট পর দেখুন ডাল নরম হয়ে গেছে না কি।

ভাজা জিরার গুড়া ও কাঁচা মরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন।

তেল উপরে উঠে আসলে বেরেস্তা ছিটিয়ে দিন।

৬. ডাল মাখনি

উপকরণ :

-বুটের ডাল ১/২ কাপ

-মুগ ডাল ১/৪ কাপ

-রাজমা ১/৪ কাপ আদা বাটা ১ চা চামচ,

রসুন বাটl ১ চা চামচ,

ফ্রেশ ক্রিম বা টক দি আধা কাপ,

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

লবণ স্বাদ অনুসারে,

এলাচ ২টি,

দারুচিনি ২ টুকরো,

চিনি ১ টেবিল চামচ মাখন ২ টেবিল চামচ,

প্রণালী :
ডাল সারা রাত ভিজিয়ে সেদ্ধ করে নিতে হবে। রাজমা আলাদা একটি পাত্রে সিদ্ধ করে নিতে হবে।

এবার কড়াইয়ে মাখন দিয়ে পেঁয়াজ লাল হলে সব বাটা মশলা, গুড়া মরিচ ও গোটা মশলা দিয়ে কষিয়ে নিতে হবে।

ডাল , লবন ও চিনি দিয়ে নেড়ে পানি দিতে হবে।

টক দি বার ফ্রেশ ক্রিম দিয়ে ভালো ভাবে নেড়ে নেই।

পছন্দমতো মাখা মাখা হলে অন্য একটি পাত্রে মাখন দিয়ে শুকনো মরিচ ফোড়ন দিয়ে ডালের ওপর ঢেলে দিতে হবে।

৭. মসুর ডালের দোপেয়াজো

উপকরনঃ

– মসুর ডাল (পৌনে এক কাপ)

– একটা পেঁয়াজ (বড়, যেভাবে ইচ্ছা কাটুন)

– এক চামচ রসুন বাটা

– হাফ চামচ হলুদ গুড়া

– হাফ চামচ মরিচ গুড়া (দেখে বুঝে)

– কয়েকটা কাঁচা মরিচ

– পরিমান মত লবন

– দুই চামচ তেল

– দেড় কাপ পানি

প্রণালীঃ
মসুর ডাল ঘন্টা খানেক ভিজিয়ে রেখে নরম করে নিতে হবে।

তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ, রসুন এবং কাঁচা মরিচ দিয়ে ভাজতে থাকুন।

লবন দিতে ভুলবেন না, সামান্য লবন দিয়ে শুরু করা ভাল।

পেয়াজের রংটা হলুদ হয়ে আসলে তাতে মসুর ডাল দিয়ে দিন।

মসুর ডাল ভাল করে মিশিয়ে কয়েক মিনিট ভাজুন এবং এর পর হলুদ ও মরিচ গুড়া দিয়ে দিন।

মসুর ডালের রং হলুদ হয়ে যাবে। এবার দেড় কাপ পানি দিয়ে দিন এবং জ্বাল বাড়িয়ে দিন।

মাঝে মাঝে হাল্কা নাড়িয়ে দেবেন। বেশী নেড়ে আবার ডাল ভেঙ্গে ফেলবেন না।

পানি কমে একটা পর্যায়ে শুকনো হয়ে আসবে। কেমন রাখবেন তা আপনার ইচ্ছার উপর।

তবে পানি কমিয়ে ফেলাই ভাল। লবণ চেখে দেখুন। লাগলে দিন, না লাগলে ওকে! আর শুকিয়ে ফেলা ঠিক হবে না।

ব্যস পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত। সামান্য ধনিয়া পাতা থাকলে উপরে ছিটিয়ে দিলে আরো দেখতে সুন্দর এবং মজাদার হয়।

৮. মাশকালাই ডালের রেসিপি

উপকরনঃ

মাশকালাইয়ের ডাল আধা কেজি,

কাঁচা মরিচ ফালি ৫ টি,

হলুদের গুড়া ১ চা-চামচ,

দেশি পেয়াজ গোল গোল কুচি ৪টি,

লবণ,

ধনিয়া পাতা কুচি ও সয়াবিনের তেল পরিমান মত।

প্রনালীঃ
প্রথমে ডাল ভাল করে ভেজে পরিমান মত পানি, কাঁচা মরিচ ফালি ও পেয়াজ কুচি দিয়ে সিদ্ধ দিন।

ডাল সিদ্ধ হয়ে গেলে মিহি করে ঘন্ট করুন।

ডালে যখন বলোগ উঠবে তখন গোল করা পেয়াজের কুচি ও ধনিয়া পাতা দিয়ে ২ মিনিট আঁচ দিন।

অন্য একটি পাত্রে পরিমান মত তেল দিয়ে পেয়াজ কুচি বাদামী রঙ এ ভেজে ডাল ঢেলে দিন।

এবার ভাজি বা আলু ভর্তা দিয়ে ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।

৯. চেনা ডালের অত্যন্ত সুস্বাদু অজানা স্বাদ ‘তড়কা ডাল’

উপকরণঃ

– ১ কাপ যে কোনো ডাল (মুগ/মসুর/বুট কিংবা মিক্সড)

– ১ টি পেঁয়াজ কুচি

– ২ টি মরিচ কুচি

– ২ টি টমেটো কুচি

– ১ চিমটি জিরা

– ১ চা চামচ মরিচ গুঁড়ো

– ১/৪ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো

– ২ টি শুকনো মরিচ

– ১ মুঠো ধনে পাতা

– লবণ স্বাদ মতো

– ২ টেবিল চামচ তেল

– ১ টেবিল চামচ ঘি/বাটার

প্রনালীঃ
– ডাল ধুয়ে ৩ কাপ পানি, লবণ ও হলুদ গুঁড়ো দিয়ে প্রেসার কুকারে দিয়ে দিন। ডাল সেদ্ধ হয়ে যাওয়া পর্যন্ত রান্না করুন।

– একটি প্যানে তেল গরম করে এতে জিরা দিয়ে দিন। এবং ফুটে উঠলে পেঁয়াজ ও মরিচ কুচি দিয়ে নরম করে নিন। এরপর এতে দিন মরিচ গুঁড়ো ও টমেটো। ভালো করে ভেজে নিন এবং টমেটো নরম হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

– তারপর সেদ্ধ করে রাখা ডাল প্যানে দিয়ে ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে নিন। এবং একেবারে অল্প আঁচে চুলার উপরে রেখে রান্না করতে থাকুন। একেবারে শেষের দিকে ধনে পাতা কুচি ছিটিয়ে দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

– আরেকটি প্যানে ঘি/বাটার গরম করে এতে কয়েকটি জিরার দানা ও শুকনো মরিচ ছিঁড়ে দিয়ে অল্প ভেজে নিন। এরপর এই তড়কাটুকু ডালের উপর ছড়িয়ে দিয়ে অল্প নেড়ে একটু মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন।

– ব্যস, এবার পরিবেশন করুন ভাত, রুটির সাথে। আর মজা নিন গরম গরম।

১০. সবজি ডাল

উপকরণ:

পাঁচমিশালি ডাল আধা কাপ,

সবজি (কাঁকরোল, পটোল, গাজর, পেঁপে ও বরবটি) ১ কাপ,

হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ,

কাঁচা মরিচ ৫টি,

জিরা টালা গুঁড়া ১ চা চামচ,

সয়াবিন তেল ৩ টেবিল চামচ ও লবণ স্বাদমতো।

প্রনালীঃ
— ডাল এক ঘণ্টা ভিজিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার ডালের সঙ্গে সবজি, হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, তেল, লবণ ও পরিমাণমতো পানি দিয়ে ডাল সিদ্ধ করে নিন।

— ডাল ও সবজি সিদ্ধ হলে কাঁচা মরিচ, গরম মসলা গুঁড়া ও জিরা গুঁড়া দিয়ে কিছুক্ষণ রান্না নামিয়ে ফেলুন।

— গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

১১. পুঁই ডাল

উপকরণঃ

বুটের ডাল আধা কাপ,

পুঁই পাতা ১২টি,

টমেটো কুচি আধা কাপ,

হলুদ গুঁড়া আধা চামচ,

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

পেঁয়াজ কুচি ৩ টেবিল চামচ,

আদা বাটা ১ চা চামচ,

গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ,

ধনে গুঁড়া ১ চা চামচ,

জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ,

কাঁচা মরিচ ৫টি,

সয়াবিন ৩ টেবিল চামচ

লবণ স্বাদমতো।

প্রনালীঃ
== বুটের ডাল ২ ঘণ্টা ভিজিয়ে লবণ দিয়ে সিদ্ধ করে নিন।

== কড়াইয়ে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি ও টমেটো হালকা নেড়ে সব বাটা ও গুঁড়া মসলা দিয়ে মসলা কষিয়ে নিন ।

== মসলা কষানো হলে পুঁই পাতা দিয়ে কিছুক্ষণ রান্না করুন।

== এবার সিদ্ধ করা ডাল ও সামান্য পানি দিয়ে ৫ মিনিট ঢেকে রান্না করুন।

== ঢাকনা খুলে কাঁচা মরিচ দিয়ে আরো কিছুক্ষণ রান্না করুন।

== মাখা মাখা হলে নামিয়ে পরোটা, রুটি অথবা ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

১২. ডালের কাটলেট

উপকরণঃ

মসুর ডাল ১ কাপ,

পাউরুটি ৪ পিস,

কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ,

গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ,

পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ,

আদা কুচি ১ চা চামচ,

কিশমিশ কুচি,

গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ,

জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ,

ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ,

ডিম ১টি,

ময়দা ১ কাপের চার ভাগের এক ভাগ,

ব্রেডক্রাম ১ কাপ,

তেল পরিমাণমতো

লবণ স্বাদমতো।

প্রনালীঃ
> মসুর ডাল অল্প পানি দিয়ে সিদ্ধ করে পানি শুকিয়ে নিন।

> পাউরুটি পানিতে ভিজিয়ে হাত দিয়ে চেপে পানি নিংড়ে ডালের সঙ্গে মিশিয়ে নিন।

> এবার ডিম, ময়দা, ব্রেডক্রাম ও তেল ছাড়া বাকি সব উপকরণ দিয়ে মেখে কাটলেটের আকারে নিন।

> ময়দায় গড়িয়ে ডিমে ডুবিয়ে ব্রেডক্রামে জড়িয়ে ২০ মিনিট ফ্রিজে রেখে দিন।

> তারপর গরম তেলে মাঝারি আঁচে ভেজে টমেটো সসের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

১৩. পাঁচমিশালি ডাল

উপকরণঃ

পাঁচমিশালি ডাল ১ কাপ,

হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

পেঁয়াজ কুচি ৩ টেবিল চামচ,

সরিষার তেল ৩ টেবিল চামচ,

কারি পাতা ১২টি,

আস্ত সরিষা ১ চা চামচ,

রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ 

লবণ স্বাদমতো।

প্রনালীঃ
>> ডাল এক ঘণ্টা ভিজিয়ে লবণ, হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া দিয়ে সিদ্ধ করে নিন।

>> কড়াইয়ে সরিষার তেল গরম করে কারি পাতা ও আস্ত সরিষার ফোড়ন দিন।

>> পেঁয়াজ ও রসুন কুচি দিয়ে হালকা ভেজে সিদ্ধ করে রাখা ডালের ওপর ঢেলে পরিবেশন করুন।

১৪. বুটের ডালের কিমা

উপকরণঃ

বুটের ডাল সিদ্ধ করা ১ কাপ,

কিমা ৩০০ গ্রাম,

পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ,

আদা বাটা ১ চা চামচ,

রসুন বাটা ২ চা চামচ,

হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ,

মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

লবণ স্বাদ অনুযায়ী,

তেল পরিমাণমতো,

ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ,

আস্ত কাঁচা মরিচ ৮টি,

গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ 

পানি পরিমাণমতো।

প্রনালীঃ
> প্রথমে কিমা পানি দিয়ে ধুয়ে ঝরিয়ে রাখুন।

> কড়াইয়ে তেল গরম করে পেঁয়াজ হালকা ভেজে নিন।

> একে একে সব উপকরণ ভালো করে কষিয়ে অল্প পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন ১০ মিনিট।

> পরে গরম মসলা গুঁড়া, ধনেপাতা কুচি এবং কাঁচা মরিচ দিয়ে মাখা মাখা করে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

১৫. ডালের বড়া

উপকরণঃ

মসুর ডাল ১৫০ গ্রাম,

রসুন বাটা ১ চা চামচ,

হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ,

মরিচের গুঁড়া আধা চা চামচ,

লবণ স্বাদ অনুযায়ী,

ধনেপাতা ২ টেবিল চা চামচ,

কাঁচা মরিচ কুচি ১ চা চামচ,

পেঁয়াজ মিহি করে কাটা ১ কাপ,

তেল ভাজার জন্য

পানি পরিমাণমতো।

প্রনালীঃ
* মসুর ডাল ভালোভাবে ধুয়ে সারা দিন পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। আবার ধুয়ে নিয়ে পানি ছেঁকে নিন।

* এবার মিহি করে বেটে নিয়ে তাতে পেঁয়াজ, ধনেপাতা ও কাঁচা মরিচ কুচি, হলুদ ও মরিচ গুঁড়া, রসুন বাটা, স্বাদ অনুযায়ী লবণ দিন।

* প্রয়োজনে অল্প পানি দিয়ে ভালোভাবে মেখে নিন।

* এরপর বড়ার আকারে গড়ে ডুবোতেলে ভেজে গরম গরম পরিবেশন করুন।

১৬. মুগ ডালের মুড়িঘণ্ট

উপকরণঃ

পাকা রুই মাছের মাথা-১টা

মুগ ডাল-৩০০ গ্রাম

কুচনো পেঁয়াজ-১ কাপ

আদা বাটা-১ টেবিল চামচ

রসুন বাটা-১ চা চামচ

ঘি-১ টেবিল চামচ

তেল

লঙ্কা গুঁড়ো-২ চা চামচ

হলুদ গুঁড়ো-১ চা চামচ

জিরে গুঁড়ো-১ চা চামচ

ছোট এলাচ-২টো

দারচিনি-২ ইঞ্চি

তেজপাতা-২টো

কাঁচালঙ্কা-৫,৬টা

ধনেপাতা কুচি-২ টেবিল চামচ

নুন-স্বাদ মতো

প্রনালীঃ
মুগ ডাল শুকনো কড়াইতে হালকা ভেজে নিয়ে কিছুক্ষণ জলে ভিজিয়ে রাখুন।

অন্যদিকে, রুই মাছের মুড়ো কেটে নিয়ে ভাল করে কেটে নিয়ে নুন, হলুদ মাখিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিয়ে হালকা ভেজে তুলে রাখুন।

এবার কড়াইতে ঘি ও তেল গরম করে গরম মশলা ও তেজপাতা ফোড়ন দিন।

পেঁয়াজ কুচি দিয়ে হালকা ভেজে নিয়ে আদাবাটা, রসুন বাটা ও গুঁড়ো মশলা দিয়ে, নুন দিয়ে ভাল করে কষিয়ে নিন।

এর মধ্যে হালকা ভাজা মাছের মুড়ো দিয়ে ভাল করে কষিয়ে ঝুর ঝুরে করে নিন।

এবার মাছের মুড়ো তুলে নিয়ে জল ঝরানো ডাল দিয়ে ভাল করে কষিয়ে নিয়ে জল দিন।

মাঝে মাঝে নাড়তে হবে। ডাল সেদ্ধ হলে মাছের মুড়ো দিয়ে রান্না করে নিন।

শেষে কাঁচা লঙ্কা, ধনেপাতা কুচি ও জিরে গুঁড়ো ছড়িয়ে অল্প কিছুক্ষণ পর নামিয়ে নিন। গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

১৭. চিরচেনা ডালের একদম অন্যরকম একটি রেসিপি

উপকরণঃ

মসুরির ডাল ১/২ কাপ

মুগের ডাল এক মুঠো (ভেজে নেয়া)

বুটের ডাল এক মুঠো (পানিতে ভিজিয়ে রাখা)

মিষ্টি কুমড়া টুকরো ১ কাপ

আলু ১/২ কাপ

গাজর টুকরো ১/২ কাপ (ইচ্ছা)

ডাটা ১/২ কাপ (ইচ্ছা)

পেঁয়াজ ও রসুন কুচি ইচ্ছামত

কারি পাতা কয়েকটি

কাঁচা মরিচ

ঘি পাঁচ ফোড়ন ১/২ চা চামচ

ভাজা জিরার গুঁড়া এক চিমটি

হলুদ গুঁড়ো

লবণ

তেল

প্রণালিঃ-
সবগুলো ডাল একত্রে ধুয়ে নিয়ে হলুদ গুঁড়ো ও লবণ দিয়ে সিদ্ধ বসিয়ে দিন।

-ডাল সিদ্ধ হয়ে গেলে ভালো করে ঘুটে নিন। মসুরির ডালটা একদম মসৃণ হয়ে যাবে ঘোটার পর।

-এবার সবজিগুলো দিয়ে দিন। ও সিদ্ধ হতে দিন। এবং মোটা মোটা করে কাটা রসুন কুচিও দিয়ে দিন।

-সবজি সিদ্ধ হয়ে গেলে ভাজা জিরার গুঁড়ো ছড়িয়ে দিন। এবার বাগার দেয়ার পালা।

-এবার একটি কড়াইতে ঘি ও তেল মিশিয়ে নিন। তাতে পেঁয়াজ গুলো লাল লাল করে ভেজে নিন। পেঁয়াজ যখন প্রায় হয়ে আসবে তার একটু আগেই শুকনো মরিচ, কারি পাতা ও পাঁচ ফোড়ন তেলে ছেড়ে দিন।

-পাঁচফোড়নের গন্ধ ছাড়লেই এই মিশ্রণ পুরোটা ঢেলে দিন ডালের মাঝে। ভালো করে মিশিয়ে নিন।

-ব্যস, তৈরি আপনার ডাল। পরিবেশন করুন গরমগরম ধনে পাতা ছিটিয়ে।

১৮. ফুলকপি দিয়ে মুগ ডাল

উপকরণঃ

২ কাপ মুগ ডাল ২ কাপ ফুলকপি, ছোট টুকরো করে কাটা৪ টেবিল চামচ মটরশুঁটি১ কাপ গাজর কুচিআধা কাপ শিম কুচি১ চা চামচ জিরা২/৩টা শুকনো মরিচ১/২টা তেজপাতাআধা চা চামচ হলুদআধা চা চামচ মরিচ গুঁড়ো১/২ চা চামচ চিনিলবণ স্বাদমতো১-২ চা চামচ

প্রণালীঃ
১) বেশ আঁচে মিনিট দুয়েক টেলে নিন মুগ ডাল। এরপর ৩ কাপ পানিতে ৩০ মিনিট সেদ্ধ করে নিন ডাল। এছাড়াও ১০ মিনিট প্রেশার কুকারে ডাল ফুটিয়ে নিতে পারেন।

২) এরপর নন-স্টিক কড়াইতে এক চা চামচ তেল গরম করে নিন। এতে আস্ত জিরা দিয়ে দিন। এরপর দিন শুকনো মরিচ এবং তেজপাতা। এরপর দিয়ে দিন ফুলকপি। সাথে দিন মটরশুঁটি বাদে অন্যান্য সবজি। ওপরে ছড়িয়ে দিন হলুদ, মরিচ গুঁড়ো, চিনি এবং লবণ। ২-৩ মিনিট সাঁতলে নিন।

৩) ঢাকনা চাপা দিয়ে রান্না হতে দিন সবজি যতক্ষণ না সব সবজি সেদ্ধ হয়ে যায়। মাঝে মাঝে অল্প করে পানি দিতে পারেন যাতে শুকিয়ে না যায়। একটু নেড়েও দিতে পারেন।

৪) এবার ওপরে ঢেকে দিন সেদ্ধ করে রাখা মুগডাল। এবার দিয়ে দিন মটরশুঁটি। বেশি আঁচে ঢাকা দিয়ে রান্না করুন ২-৩ মিনিট। লবণ চেখে দেখুন, দরকার হলে ঠিক করে নিন।

ব্যস, তৈরি হয়ে গেলো দারুণ মজাদার এবং স্বাস্থ্যকর ফুলকপির ডাল। ভাত অথবা রুটি- দুটোর সাথেই পরিবেশন করতে পারেন এই ডাল।

এক সাথে ১৮টি ডাল ভুনার রেসিপি

সূত্র: ২৪ লাইভ বাংলা নিউজ