উপকরণ –

ডিম ২টি। খালি ডিমের খোসা ৬টি।

ময়দা ১ কাপ। চিনি ১ কাপ।

তেল আধা কাপ। ভ্যানিলা এসেন্স আধা চা-চামচ।

লবণ স্বাদ মতো। বেইকিং পাউডার আধা চা-চামচ।

বেকিং সোডা আধা চা-চামচ।

হালকা গরম দুধ ১ কাপ এবং

কুসুম গরম দুধ ৩ টেবিল-চামচ।

কোকো পাউডার ২ টেবিল-চামচ।

পদ্ধতি –

ডিম কেকের জন্য কাপ কেক বানানোর প্যান লাগবে। আর বড় পাতিলের নিচে বালি দিয়ে আগে পাতিল গরম করে নিন।

প্রথমে ডিমগুলো আস্তে আস্তে করে বাইরে ধুয়ে নিন। এবার বড় কোনো সুই দিয়ে আস্তে আস্তে খুব সাবধানে ছিদ্র করুন।

তারপর ডিমের ভিতরের অংশ বের করে নিন। এই ডিমের অংশ দিয়ে কেক বানাতে হবে।

এবার খালি ডিমের খোসাগুলো পানি দিয়ে ভিতরে ভালো মতো ধুয়ে একটা পাত্রে লবণ পানি দিয়ে সেখানে ৩০ মিনিটের মতো ডুবিয়ে রাখুন।

তারপর তুলে ভালো মতো পানি মুছে ভিতরে একটু তেল দিয়ে ডিমের খোসাগুলোর বাইরে তেল মেখে রাখুন। ডিমের ভেতরের হলুদ অংশ আর চিনি ভালো মতো ব্লেন্ড করে নিন।

তারপর আবার তেল দিয়ে ব্লেড করুন। এবার ময়দা, লবণ, বেইকিং পাউডার, বেইকিং সোডা ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে ডিম-চিনির মিশ্রণে আস্তে আস্তে লিকুইড মিক্সারে দিয়ে মিশিয়ে নিন।

সঙ্গে ভ্যানিলা এসেন্স আর কুসুম গরম দুধ মেশান। এবার মিশ্রণটা সমান দুই ভাগ করুন।

তারপর কুসুম গরম দুধে কোকো পাউডার মিশিয়ে এক ভাগ মণ্ডে মেশান। আরেক ভাগে কোকো পাউডার মেশাবেন না। সেটা সাদাই থাকবে।

এখন সসের বোতলে ভরে নিন। এবার কাপ কেকের প্যানে আলুনিয়াম ফয়েল দিন যেন ডিম বসে থাকে। এবার ডিম বসিয়ে আস্তে আস্তে ভিতরে চকলেট লেয়ার দিন এরপর ভ্যানিলা লেয়ার বা সাদা লেয়ার দিন।

পুরো ডিম ভরে দেবেন না একটু বাকি রাখবেন। কারণ কেক ফুলে ওপরে চলে আসবে। সব তৈরি হলে চুলায় গরম করতে দেওয়া পাতিলের বালিতে বসিয়ে দিয়ে উপরে ঢাকনা দিয়ে দিন।

৩০ মিনিট পর পরীক্ষা করুন। হয়ে আসলে নামিয়ে নিন। ঠাণ্ডা হলে বাইরে বের হয়ে যাওয়া কেক ছুরি দিয়ে পরিষ্কার করে সাজিয়ে পরিবেশন করুন মজার চুলায় বানানো ডিমের কেক।