মজার রান্না ডেস্ক: সয়াবিন নামটি আমাদের পরিচিত। এটি থেকে শুধু তেল নয়, তৈরি করা যায় পুষ্টিকর দুধ। সয়াদুধের গুণগত মান অনেক, এতে আছে কার্বোহাইড্রেট, ক্যালোরি, প্রোটিন, ফাইবার। অনেকে শুনলে অবাক হবেন, এসব উপাদান পাওয়া যাবে প্রায় ফ্যাটবিহীন অবস্থায়। ফলে কোলেস্টেরল বৃদ্ধির কোনো ভয় নেই। সয়াদুধকে অনায়াসেই তুলনা করা যেতে পারে গরুর দুধের বিকল্প হিসেবে। গরুর দুধের বিকল্প হিসেবে সয়াদুধ বাচ্চা থেকে বৃদ্ধ নিশ্চিন্তে পান করতে পারবেন।

বাজারে কিনতে পাওয়া যায় সয়াদুধ, তবে ঘুরেফিরে কিছুটা রাসায়নিক মিশ্রণ সেখানে পাবেন। এর চেয়ে সয়াবিন থেকে সয়াদুধ বানিয়ে নিতে পারবেন আপনি নিজেই এবং তা বাড়িতেই।

প্রণালি:

২৫০ গ্রাম সয়াবিন ভিজিয়ে রাখুন ১২ ঘণ্টা। এরপর এর সঙ্গে মেশান এক লিটার পানি। ভালোমতো ব্লেন্ড করে নিন। ব্লেন্ডার না থাকলে পাটায় পিষে নিতে পারবেন। তারপর ছেঁকে নিতে হবে পাতলা কাপড় দিয়ে। খুব বেশি বিরতি না দিয়ে জ্বাল দিয়ে নিন। গরম কিংবা ঠান্ডা পছন্দমতো খেতে পারবেন এরপর।

তৈরি করা সয়াদুধটি ব্যবহার করা যাবে বেশ কিছুদিন। এ দুধ ফ্রিজে রাখা হলে জ্বাল দিতে হবে তিনদিন পরপর। এ দুধ যদি বাইরে রাখা হয় তাহলে এক দিন অন্তর জ্বাল দিতে হবে।

এক কাপ সয়াদুধে পাওয়া যাবে-

ক্যালোরি ৮০ গ্রাম

প্রোটিন ৬.৭ গ্রাম

কার্বোহাইড্রেট ৪.৪ গ্রাম

ফ্যাট ৪.৭ গ্রাম এবং

ফাইবার ৩.২ গ্রাম

তৈরি করা দুধ দিয়ে বানানো যাবে পুডিং, সেমাই, পায়েস ইত্যাদি। সয়াদুধের নিজস্ব কোনো ফ্লেভার নেই। সে ক্ষেত্রে পছন্দমতো ফ্লেভারটি মিশিয়ে নিলেই হবে। বাচ্চারা যদি খেতে না চায় তাহলে কোকো পাউডার, ফল, হরলিক্স বা বাদাম মিশিয়ে মজাদার ড্রিংকস তৈরি করে দিতে পারেন।

সয়াদুধ দামেও কম। একদম বাজেটের মধ্যেই। এক কেজি সয়াবিনের দাম ৫০ টাকা। যা থেকে তৈরি করা যাবে চার লিটার দুধ। কিনতে পাবেন কারওয়ান বাজার ও গুলশানেও।

সূত্র: পরিবর্তন