fbpx
Trending

ইফতারির জন্য শিখে নিন একসাথে সমুচা, সিঙ্গারা ও ডালপুরি তৈরীর পারফেক্ট রেসিপি

সমুচা তৈরীর রেসিপি

উপকরণঃ

তেল ১০ টেবিল চামচ,

পেঁয়াজ ২টি,

কারি পাউডার ২ চা চামচ,

চিংড়ি মাছ পরিষ্কার ২০০ গ্রাম,

ময়দা ২৫০ গ্রাম,

জিরা গুড়া আধা চা চামচ,

আদা, রসুন কুচি পরিমাণ মতো,

লবণ পরিমাণ মতো ।

প্রস্তুত প্রণালীঃ

কড়াইতে তেল দিয়ে কাটা পেঁয়াজগুলো ছেড়ে দিন। এবার পেঁয়াজ বাদামি রং হয়ে এলে চিংড়ি মাছ দিতে হবে। এরপর কারি পাউডার দিতে হবে।আদা ও রসুন কুচি দেওয়ার পর পানি শুকিয়ে এলে মাছ ভাজা ভাজা হবে। মাছ ভাজা হলে জিরা ভাজা গুড়া দিয়ে নামিয়ে ফেলুন।ময়দা, ২ চা চামচ তেল ও লবণ পানি দিয়ে রুটি বানানোর মতো করে দলা বানান। এবার ছোট ছোট রুটি বানান। একটি রুটিকে মাছখানে কেটে দুই ভাগ করে নিন।ওই রুটির ভিতরে চিংড়ি ভাজা গোল করে পেঁচিয়ে পানি দিয়ে মুখ বন্ধ করে তেলে ভাজতে হবে। সমুচার আকৃতি আপনার পছন্দ মতো করে নিতে পারেন।যেমন চারকোণা, গোল বা তিন কোণা। এবার টেবিলে সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

মুচমুচে সিঙ্গারা তৈরীর রেসিপি

উপকরণঃ

ডো তৈরিরঃ

ময়দা ২ কাপ,

কালজিরা ১/২ চা চামচ,

তেল ২-৩ টেবিল চামচ,

লবণ ১/২ চা চামচ,

বেকিং পাউডার ১ চা চামচ (ঐচ্ছিক ) ।

ডো তৈরির প্রণালীঃ

সব উপকরণ একসাথে মিশিয়ে নিন। পানি দিয়ে শক্ত ডো তৈরি করুন। রুটির ডোর মতো ডো হবে। ১ ঘণ্টা ঢেকে রাখুন।

পুর তৈরির উপকরণঃ

আলু ৩-৪ টি,

পাঁচফোড়ন ১/২ চা-চামচ,

পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ,

কাঁচামরিচ কুচি স্বাদমতো,

কাঁচা বাদাম ২ টেবিল চামচ,

মটর / ছোলা সিদ্ধ ১/২ কাপ,

রাঁধুনি বিফ মশলা ১/২ প্যাকেট,

তেজপাতা ১-২ টি,

তেল ৩ টেবিল চামচ,

লবন পরিমানমতো ।

পুর তৈরির প্রণালীঃ

আলু খোসা ছাড়িয়ে কিউব করে কেটে নিন। বাদাম কিছুক্ষন ভিজিয়ে রাখুন। প্যানে তেল গরম করে পাঁচফোড়ন দিন। এবার পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাজুন।পেয়াজ ভাজা হয়ে গেলে সব মশলা দিয়ে দিন। মশলা ভাল করে কষিয়ে নিন। আলু , বাদাম ও পরিমানমতো পানি দিয়ে ঢেকে দিন।আলু সিদ্ধ হয়ে আসলে মটর দিয়ে দিন। ঝোল মাখা মাখা হয়ে আসলে নামিয়ে নিন।

সিঙ্গারা ভাজার প্রণালীঃডুবো তেলে ভাজতে হবে। তেল মৃদু আঁচে অনেকটা সময় গরম করে নিন। আচ বেশি হলে সিঙ্গারা বেশি বাদামি হয়ে যাবে। তিনটি করে সিঙ্গারা মৃদু আঁচে ১৫-২০ মিনিট ভাজুন। হালকা বাদামি ও মচমচে হলে নামিয়ে নিন।

টিপসঃ

পাঁচফোড়ন পছন্দ না করলে পাঁচফোড়নের স্থানে সামান্য জিরা দিতে পারেন।

আগে পুর ঠাণ্ডা করে নিয়ে সিঙ্গারার ভাজে দিবেন।

আমি ঝটপট তৈরি করার জন্য রাঁধুনি প্যাকেট মশলা ব্যাবহার করি আপনারা ইচ্ছা করলে গুঁড়া ধনিয়া, জিরা, আদা ও রসুন বাটা দিতে পারেন।

পরিবেশন:সস অথবা তেঁতুলের চাটনী দিয়ে বিকালের নাশতায় চায়ের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

৩। ডালপুরি তৈরি করার রেসিপি

উপকরণঃ

মসুর ডাল আধা কাপ,

আদা বাটা আধা চা চামচ,

শুকনামরিচ ৬টি,

দারুচিনি ১ টুকরা,

এলাচ ২ টা,

পিয়াজ ১ কাপ,

ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ,

ময়দা ৩ কাপ,

লবণ স্বাদমতো ও তেল ভাজার জন্য,

পানি পরিমানমত ।

প্রণালীঃ

ডালে আধা থেকে পৌনে এক কাপ পানি, আদা, দারুচিনি, এলাচ এবং লবন দিয়ে মৃদু আঁচে সেদ্ধ করুন। ডাল সেদ্ধ হয়ে শুকালে ভালোভাবে নেড়ে নামান।দারুচিনি, এবং এলাচ তুলে ফেলে দিন। হাত দিয়ে ডাল মথুন। শুকনো মরিচ তেলে ভেজে গুঁড়ো করুন। ১ কাপ পেঁয়াজ বেরেস্তা করুন। ডালের সঙ্গে ভাজা মরিচ, বেরেস্তা, ধনেপাতা ও লবণ মেশান।ময়দার সঙ্গে ২ চা চামচ লবণ ও ৬ টেবিল চামচ তেল দিয়ে ময়ান দিন (ডালপুরি খাস্তা না করে নরম করতে চাইলে ময়দায় আরো ২ টেবিল চামচ তেলের ময়ান দেবেন) আধকাপ থেকে ১ কাপ পানি দিয়ে ময়দা মথুন।খামির নরম করবেন । ময়দা এবং ডাল সমান ভাগ করুন। এক ভাগ ময়দা নিয়ে গোল বাটির মতো করে মাঝে ডাল ভরে মুখ বন্ধ করুন। এভাবে সবগুলো করুন। পিঁড়িতে হালকা তেল দিন ।একেকটি ডালের পুর ভরা ময়দার গোলা নিয়ে মুখ বন্ধ দিক নিচের দিকে রেখে বেলুন। সাবধানে বেলবেন যেন ডাল বের না হয়। ডালপুরি ডুবো তেলে মাঝারি আঁচে মচমচে করে ভাজুন। সস, চাটনি বা আচার দিয়ে পরিবেশন করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close