মিষ্টি আলুর পায়েস

উপকরণ

আলু এক কেজি,

দুধ আধা কেজি,

খেজুরের গুড় আধা কেজি,

ঘি এক টেবিল চামচ,

লবণ সামান্য/পরিমাণ মতো,

তেজপাতা, কিসমিস, দারুচিনি,

ড্রাই ফ্রুট পরিবেশনের জন্য।

প্রণালী

মিষ্টি আলুগুলো ভালো করে ধুয়ে ও খোসা ছিলে নিতে হবে। তারপর আলুগুলোকে চিকন করে কেটে ঝুরি করে নিতে হবে, অনেকটা আলু ভাজার মতো।

খেয়াল রাখতে হবে, আলু কুচিগুলো যেন একেবারে মিহি হয়ে না যায়। এবার একটি পাত্রে দুধ ঢেলে দিয়ে, তাতে একটি তেজপাতা, দুটি দারুচিনি দিয়ে নাড়তে হবে, দুধ ঘন হয়ে এলে চুলার আঁচ কমিয়ে দিতে হবে।

অন্য একটি পাত্রে ঘি দিয়ে গরম করে তার মধ্যে আলু কুচিগুলো দিয়ে নাড়তে হবে। এমনভাবে নাড়তে হবে যেন লেগে না যায়। দুই বা তিন মিনিটের মতো ভাজা হলে অল্প করে লবণ ছিটিয়ে দিতে হবে।

এরপর চুলায় রাখা ফুটন্ত দুধে খেজুরের গুঁড় দিয়ে দিতে হবে। গুঁড় ভালো করে মিশে গেলে ঘিয়ে ভাজা মিষ্টি আলুর কুচিগুলো দিয়ে দিতে হবে। কিসমিস দিয়ে ১০ মিনিট চুলায় রেখে নাড়তে হবে।

পায়েস ঘন হয়ে এলে নামিয়ে ফেলতে হবে। উপরে ড্রাই ফ্রুটস ছড়িয়ে দিলেই হয়ে গেল মিষ্টি আলুর পায়েস।

মিষ্টি আলুর নোনতা বিস্কুট

উপকরণ

মিষ্টি আলু আধা কেজি,

লবণ পরিমাণ মতো।

প্রণালী

আলু ভালো করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। এরপর বটি কিংবা ছুরি দিয়ে আধা ইঞ্চি পুরু করে স্লাইস করে কেটে নিতে হবে। স্বাদমতো লবণ দিয়ে মাখিয়ে রাখতে হবে ৫ মিনিট।

রুটি বানানো তাওয়ার উপর স্লাইস করা আলুগুলো সারি সারি করে বিছিয়ে দিতে হবে। এবার চুলার জ্বাল মাঝারি আঁচে দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।

দুই মিনিট পরে বিস্কুটগুলো আবার ওপিঠ করে সেঁকতে হবে।প্রয়োজন হলে আবার উল্টিয়ে দিতে হবে। বিস্কুটগুলো বাদামী রঙের হয়ে এলে তাওয়া থেকে নামিয়ে গরম গরম চায়ের সাথে পরিবেশন করুন মিষ্টি আলুর নোনতা বিস্কুট।

মিষ্টি আলুর বিভিন্ন ধরনের খাবার অনেকেই খেয়েছেন। কিন্তু মজাদার এই আলুর তরকারি খুব কম মানুষই খেয়েছেন। আসুন জেনে নিই ভাত বা পোলাওয়ের সাথে খাওয়ার জন্য মিষ্টি আলুর তরকারির একটি রেসিপি।

টমেটো দিয়ে মিষ্টি আলু

উপকরণ

টমেটো ৩টি,

মিষ্টি আলু আড়াইশ গ্রাম,

তেল এক টেবিল চামচ,

আলু বোখরা ৪-৫টি,

আদা কুচি এক চামচ,

মৌরি এক চামচ,

হলুদ পরিমাণ মতো,

চিনি এক চা চামচ,

লবণ স্বাদমতো।

প্রণালী

মিষ্টি আলুগুলোর খোসা ছাড়িয়ে চাকা চাকা করে কেটে নিতে হবে। টমেটোগুলোও টুকরো টুকরো করে কাটতে হবে। এবার কড়াইতে তেল দিয়ে মৌরি ফোঁড়ন দিতে হবে।

ফোঁড়ন দেওয়ার পর আদাকুচি দিয়ে সামান্য ভাজতে হবে। এবার টমেটো, আলু, কিসমিস, আলু বোখরা, লবণ ও হলুদ দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে। টমেটো নরম হয়ে এলে চিনি দিয়ে নেড়ে দিতে হবে।

ঘন হয়ে এলে নামিয়ে ফেললেই হয়ে গেল মিষ্টি আলু আর টমেটোর তরকারি।

মিষ্টি আলুর হালুয়া

উপকরণ

মিষ্টি আলু আধা কেজি,

ঘি চার টেবিল চামচ,

নারকেল কোরা দুই টেবিল চামচ,

চিনি ২ টেবিল চামচ,

বাদাম কুচি ৪ চামচ,

দুধ এক কেজি,

একটি তেজপাতা,

দুটি দারুচিনি ও এক চামচ এলাচ গুঁড়ো।

প্রণালী

প্রথমে মিষ্টি আলুগুলোকে সেদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। এরপর কড়াইতে ঘি দিয়ে আলুগুলো হালকা ভেজে নিতে হবে। ঠান্ডা হলে আলুগুলো ভালোভাবে ভর্তা করতে হবে বা পিষে নিতে পারেন।

দুধে তেজপাতা, দারুচিনি ও এলাচ দিয়ে জ্বাল দিয়ে ঘন করে সেই দুধে পেষা আলুগুলো দিয়ে দিতে হবে। ঘন হয়ে এলে তাতে নারকেল কোরা, বাদাম, চিনি, কিসমিস দিয়ে নাড়তে হবে।

১০ মিনিটের মতো হালকা আঁচে চুলায় রেখে নাড়তে থাকতে হবে। যখন আলুগুলো রঙ বদলে যাবে তখন বুঝতে হবে হালুয়া হয়ে গেছে। ব্যস! হয়ে যাবে মজাদার মিষ্টি আলুর হালুয়া।

উপরে বাদামের কুচি, শুকনো কিসমিস, কোরা নারকেল ও চাইলে চেরি ফল কুচি করে ছিটিয়ে পরিবেশন করুন অত্যন্ত সুস্বাদু মিষ্টি আলুর হালুয়া।

মিষ্টি আলুর পিঠা

নতুন চাল, চালের আটা, নতুন গুড় এসবের পিঠাপুলি তো এদেশের ঘরে ঘরে হয়েই থাকে। কিন্তু নতুন ওঠা মিষ্টি আলু দিয়ে যে জিভে জল আনা পিঠা তৈরি করা যায়, তার স্বাদ কিন্তু সকলের পরিচিত নয়। জেনে নেওয়া যাক মিষ্টি আলুর রসালো পিঠার রেসিপি।

উপকরণ

মিষ্টি আলু এক কেজি,

চিনি আধা কেজি,

চালের ময়দা আড়াইশ গ্রাম,

ঘি ২ টেবিল চামচ,

নারকেল কোরা ২৫০ গ্রাম,

এলাচ গুঁড়া ১ চা চামচ,

তেল ভাজার জন্য।

সিরা তৈরি

প্রথমে একটি হাঁড়িতে পরিমাণ মতো পানি নিয়ে তাতে চিনি মেশাতে হবে। এবার চুলায় বসিয়ে দিয়ে অল্প আঁচে সিরা বানাতে হবে। সিরা বানানো হয়ে গেলে আলাদা করে সরিয়ে রাখতে হবে।

পুর বানানোর জন্য

একটি পাত্রে ২ টেবিল চামচ ঘি এবং নারকেল কোরা নিয়ে জ্বাল দিতে হবে। নারকেল কোরাগুলো যখন বাদামী রঙের হয়ে যাবে তখন তাতে এলাচ গুঁড়া ও চিনি মিশিয়ে আরেকটু জ্বাল দিতে হবে।

দেখবেন খুব সুন্দর ঘ্রাণ বেরোচ্ছে। আর পুরের গাঢ় বাদামী রঙই বলে দেবে যে পুর প্রস্তুত।

পিঠা বানানোর জন্য

মিষ্টি আলুগুলোকে সেদ্ধ করতে দিতে হবে। সেদ্ধ হয়ে গেলে আলুগুলোর খোসা ছড়িয়ে ভালো করে চটকে নিতে হবে। এবার চালের ময়দা ও চটকানো আলু এক চিমটি লবণ দিয়ে ভালো করে পানি দিয়ে মেখে নিতে হবে।

এই মিশ্রণ থেকে ছোট ছোট আকারের বল বানিয়ে এবং সেই বলগুলোর ভিতরে পুর দিয়ে ডিম্বাকার বা অর্ধচন্দ্রাকার করে বানাতে হবে।

এবার আরেকটি প্যানে তেল গরম করে তাতে পিঠাগুলো আলাদা আলাদা করে ছেড়ে দিতে হবে। বাদামী রঙের হয়ে গেলে গরম গরম পিঠা সিরায় দিয়ে দিতে হবে।

ঠান্ডা ও রসালো হয়ে গেলে পরিবেশন করুন মিষ্টি আলুর সুস্বাদু পিঠা।

এভাবে খুব সহজেই তৈরি করতে পারেন সাধারণ এই মিষ্টি আলু দিয়ে অসাধারণ ও সুস্বাদু সব পদ। আপনার রান্নার গুণে মুগ্ধ হোক আপনার আপনজনেরা।

সূত্র: roar বাংলা