সবজি পাবদা–

উপকরণ :পাবদা মাছ ৩০০ গ্রাম,বরবটি ১ কাপ (মাঝারি টুকরা করা),পেঁয়াজের ফালি আধা কাপ (মাঝারি টুকরা করা),কাঁচামরিচ ফালি করা ৩-৪টি,পেঁয়াজ কুচি আধাকাপ,লবণ স্বাদ অনুযায়ী,মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ,হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ,তেল পরিমাণমতো,ধনেপাতা কুচি ২ টেবল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি :প্রথমে মাছ কুটে ভালো করে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন।তারপর কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচ হালকা ভেজে নিন।একে একে সব বাটা ও গুঁড়া মসলা, স্বাদ অনুযায়ী লবণ এবং পরিমাণমতো পানি দিয়ে মসলা ভালো করে কষিয়ে নিন।তাতে বরবটির টুকরাগুলো দিয়ে আবার কিছুক্ষণ ঢেকে রান্না করুন।তার ওপর পাবদা মাছ সাজিয়ে ধনেপাতা কুচি ও পেঁয়াজের ফালি দিয়ে কিছুক্ষণ ঢেকে চুলায় রান্না করে নামিয়ে পরিবেশন করুন সবজি পাবদা।

পাঁচ ফোড়ন দিয়ে সবজি–

উপকরণ :পেঁপে+আলু (কিউব) ১ কাপ,সিম+ বরবরটি+পটল আধা কাপ,গাজর আধা কাপ,পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ,আদা বাটা ১ চা চামচ,হলুদ বাটা আধা চা চামচ,মরিচ বাটা ১ চা চামচ,পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ,কাঁচামরিচ ৪-৫টি,লবণ স্বাদমতো,জিরা ভাজা গুঁড়া ১ চা চামচ,সয়াবিন তেল আধা কাপ।

প্রণালি :সব সবজি ধুয়ে কিউব করে কেটে নিন। চুলায় পাত্র দিয়ে তেল দিন।তেল গরম হলে পাঁচফোড়ন, আদাবাটা ও সবজি দিয়ে নাড়া দিন।এবার পেঁয়াজ কুচি, হলুদ, মরিচ দিন। মাঝে মাঝে নাড়ুন প্রয়োজন হলে অল্প পানি দিন।সবজি সিদ্ধ হলে জিরা গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে নিন।

সবজি-বড়ির ঝোল–

উপকরণ:ফুলকপি ১টি, শিম কয়েকটি,শালগম ১টি,টমেটো ৩টি,কুমড়ার বড়ি ১ কাপ,ধনেপাতা ২ টেবিল চামচ,পেঁয়াজকুচি আধা কাপ,আদা বাটা ১ চা-চামচ,রসুনবাটা আধা চা-চামচ,জিরাবাটা আধা চা-চামচ,সয়াবিন তেল আধা কাপ,শুকনো মরিচের গুঁড়া ১ চা-চামচ,হলুদের গুঁড়া আধা চা-চামচ,যেকোনো মাছ ৬-৭ টুকরো।

প্রণালি:বড়ি অল্প তেলে হালকা ভেজে নিতে হবে। লেবু ও লবণ দিয়ে মাছ ভালোভাবে ধুয়ে ভেজে রাখতে হবে।পাত্রে তেল দিয়ে পেঁয়াজ বাদামি করে ভেজে সব বাটা মসলা দিয়ে কষাতে হবে, সঙ্গে একটি টমেটোকুচি দিতে হবে।টমেটো গলে গেলে সবজিগুলো একই রকম করে কেটে দিয়ে কষাতে হবে। এরপর গরম পানি দিতে হবে।ফুঠে উঠলে মাছ ভাজি, টমেটো টুকরো ও বড়ি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।সবকিছু ভালোভাবে সেদ্ধ হলে নামানোর আগে ধনেপাতা দিয়ে দুই মিনিট চুলায় রেখে নামিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

পাঁচমিশালি সবজিঘণ্ট–

উপকরণ :সাদা আলু ১ কাপ,মিষ্টি আলু ১ কাপ,চিচিঙ্গা ১ কাপ,কাঁচা কলা ১ কাপ,পেঁপে ১ কাপ,তেল আধা কাপ,আদা কুচি আধা কাপ,চাল কুমড়া ১ কাপ,ধুন্দল ১ কাপ,বেগুন ১ কাপ,লবণ স্বাদমতো,চিনি ১ চা চামচ,রসুন কুচি ১ টেবিল চামচ,পাঁচফোড়ন আদা চা চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি :সব সবজি মিলিয়ে আট কাপ কিউব কাটা সবজি লবণ ও হলুদ গুঁড়া দিয়ে সিদ্ধ দিতে হবে।এবার তেল গরম করে সব মসলা দিয়ে বাগাড় দিতে হবে।বাগাড়ের সময় চামচ দিয়ে সবজি চেপে চেপে ভেঙে দিতে হবে।

নানা পদের সবজি দিয়ে মুগডাল–

উপকরণ:মুগ ডাল- ১ কাপআলু, সিম, বেগুন, মিষ্টিকুমড়া, ফুলকপি টুকরা পরিমাণমত।পেঁয়াজ কুচি- ১ কাপহলুদ, মরিচ, ধনে জিরাগুড়া মিলে ১.৫ চা চামচপেঁয়াজ বাটা- ১ চা চামচরসুন বাটা- ১ চা চামচআদাবাটা- ১ চা চামচপাঁচফোড়ন- ১ টেবিল চামচলবণ স্বাদমতোকাঁচা মরিচ কয়েকটাতেল- ২ টেবিল চামচপেঁয়াজ বেরেস্তা পরিমাণমতো

প্রণালি:প্রথমে প্যানে মুগডাল হালকা আঁচে হালকা লাল করে ভেজে রাখুন।এবার একটি হাঁড়িতে তেল দিয়ে তাতে পাঁচফোড়ন দিন। ফুটে উঠলে পেঁয়াজ কুচি দিন। হালকা লাল হলে তাতে গুড়ো মসলা আর বাটা মসলা লবণ দিয়ে কষিয়ে নিন।মসলা কষানো হলে এতে সব সবজি আর ভাজা ডাল দিয়ে রান্না করুন। ১০ মিনিট পর ২ কাপ গরম পানি আর উপরে কাঁচা মরিচ দিয়ে খুব অল্প আঁচে রান্না করুন আরো ২০ মিনিট।এরপর নামিয়ে উপরে বেরেস্তা ছিটিয়ে দিন। রুটি কিংবা পরোটার সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করতে পারেন।

সবজি-ডাল–

উপকরণঃবুটের ডাল ২ কাপ।বেগুন ১টি (মোটা করে কাটা)।ক্যাপসিকাম-কুচি ১টি।টমেটো ২টি।মাশরুম ৩-৪টি।কাঁচামরিচ ২টি।হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ।জিরাগুঁড়া চা-চামচের তিনভাগের একভাগ।পেঁয়াজকুচি ১ চা-চামচ।আদা মিহিকুচি আধা চা-চামচ।রসুনকুচি আধা চা-চামচ।পাঁচফোড়ন ১ চা-চামচ।দারুচিনি ২ টুকরা।লবণ স্বাদমতো।তেল পরিমাণ মতো।

পদ্ধতি:লবণ, কাঁচামরিচ, আদা, ক্যাপসিকাম-কুচি দিয়ে ডাল সিদ্ধ করতে দিন।কিছুক্ষণ পর হলুদ আর জিরাগুঁড়া দিয়ে আর একটু সিদ্ধ হতে দিন।সবজিগুলো লবণ দিয়ে মাখিয়ে প্যানে তেল দিয়ে হালকা ভেজে নিন।এবার সবজিগুলো তুলে নিন। এই প্যানে আবার সামান্য তেল দিয়ে পেঁয়াজ আর রসুনকুচি ২ মিনিট ভাজুন।তারপর দারুচিনি আর পাঁচফোড়ন দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভেজে গন্ধ বের হলে ডালের মধ্যে দিয়ে দিন।সবজিগুলো দিয়ে আরও কিচ্ছুক্ষণ জ্বাল দিন।

সবজি পনির–

যা যা লাগবে-সবজি (গাজর, ফুলকপি, টমেটো, সবুজ ক্যাপসিকাম)—এক কাপ,তেল—পরিমাণমতো,রসুন কুচি—দুই টেবিল চামচ,পেঁয়াজ কুচি—তিন টেবিল চামচ,আদা বাটা—এক টেবিল চামচ,পেঁয়াজ বাটা—এক টেবিল চামচ,মরিচ গুঁড়া—আধা চা চামচ,হলুদ গুঁড়া—আধা চামচ,গরম মশলার পাউডার—আধা চা চামচ,ভাজা জিরার গুঁড়া—এক চা চামচ,লবণ—স্বাদমতো,পানি—পরিমাণমতো,পনির—এক কাপ,ঘি (পছন্দমতো)—এক চা চামচ,কাঁচামরিচ—সাত-আটটি,

প্রস্তুত প্রণালি-প্রথমে চুলায় একটি ফ্রাইপ্যানে তেল গরম দিন। এর পর গরম তেলে রসুন কুচি ও পেঁয়াজ কুচি দিয়ে হালকা ভেজে নিন। এবার অন্য একটি পাত্রে সামান্য পানির মধ্যে আদা বাটা, পেঁয়াজ বাটা, মরিচ গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া, গরম মশলার গুঁড়া, ভাজা জিরার গুঁড়া, লবণ দিয়ে মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন।এখন মশলার মিশ্রণগুলো ফ্রাইপ্যানে দিয়ে কষান। কষানো হলে সবজিগুলো এর মধ্যে ঢেলে নাড়ুন। এর পর সামান্য পানি দিয়ে কমপক্ষে ১০ মিনিট ঢেকে রাখুন।সেদ্ধ হয়ে এলে পনির, কাঁচামরিচ ও ঘি (পছন্দমতো) দিয়ে আবারো কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন। সবশেষে চুলা থেকে নামিয়ে পাত্রে ঢেলে গরম গরম পরিবেশন করুন মজাদার সবজি পনির। সবুজ লেটুস পাতা ও গাজর দিয়ে ফুল তৈরি করেও পরিবেশন করতে পারেন।

ক্যাপসিকাম ও সবজিতে তেলাপিয়া–

উপকরণ :আধা কেজি ওজনের তেলাপিয়া মাছ ১টি,লেবুর রস ২ টেবিল-চামচ,মরিচগুঁড়া ২ টেবিল-চামচ,আদাবাটা ২ চা-চামচ,রসুনবাটা ১ চা-চামচ,ফিশ সস ৩ টেবিল-চামচ,লবণ সামান্য,লাল-হলুদ-সবুজ ক্যাপসিকাম টুকরা ১ কাপ,বেবিকর্ন-ফুলকপি-বরবটি-গাজর-সিম ১ কাপ,টমেটো টুকরা করে কাটা সিকি কাপ,পেঁয়াজ পাপড়ি (ভাঁজ খোলা) সিকি কাপ,কাঁচা মরিচ ৫-৬টি,অলিভ অয়েল ৩ টেবিল-চামচ,কর্নফ্লাওয়ার ১ টেবিল-চামচ,ময়দা ৩ টেবিল-চামচ,সাদা গোলমরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ,তেল ভাজার জন্য,চিনি ১ চা-চামচ,রসুনকুচি ১ চা-চামচ।

প্রণালি :মাছ ধুয়ে পরিষ্কার করে পানি ঝরিয়ে নিন। মাছের গায়ে বরফি আকারে দাগ কেটে লেবুর রস দিন।মরিচগুঁড়া অর্ধেক, আদা-রসুনবাটা অর্ধেক, ফিশ সস ও সামান্য লবণ মিলিয়ে মাছের দুই পিঠে ও পেটে ভালো করে লাগিয়ে ৩০-৩৫ মিনিট ম্যারিনেট করতে হবে।মাছের দুই পিঠে ময়দা লাগিয়ে ডুবো গরম তেলে বাদামি রং না হওয়া পর্যন্ত ভাজতে হবে। সার্ভিং ডিশে রাখুন।অলিভ অয়েল গরম করে তাতে রসুন বাদামি রং না হওয়া পর্যন্ত ভাজতে হবে।এরপর তাতে আদা-রসুনবাটা, ফিশ সসসহ পর্যায়ক্রমে বাকি সব সবজি দিয়ে কিছুক্ষণ কষিয়ে ১ কাপ পানি দিতে হবে।ফুটে উঠলে লবণ, টমেটো, ক্যাপসিকাম, পেঁয়াজের পাপড়িগুলো দিতে হবে। আধা কাপ কুসুম গরম পানিতে কর্নফ্লাওয়ার গুলিয়ে, চিনি, লেবুর রস মিলিয়ে দিন। কাঁচা মরিচ গোলমরিচগুঁড়া মিলিয়ে মাছের ওপর ঢেলে দিতে হবে।গরম গরম সাদা ভাত, ফ্রায়েড রাইস, পোলাওয়ের সঙ্গে পরিবেশন করা যায়।

মাংসের রান্নায় সবজির স্বাদ–

যা যা লাগবেঃমুরগির কিমা ১ কাপ,মিষ্টি কুমড়া টুকরা হাফ কাপ,আলু টুকরা হাফ কাপ,পেঁপে টুকরা হাফ কাপ,লাউ টুকরা হাফ কাপ,ঝিঙা টুকরা হাফ কাপ,পাঁচফোড়ন ২ চা চামচ,আদা ছেঁচা দেড় টেবিল চামচ,দুধ ১/৪ কাপ,ঘি ২ চা চামচ,তেল ২ টেবিল চামচ,কাঁচামরিচ কয়েকটা,লবণ স্বাদমত,ধনিয়া পাতা কুচি (পরিবেশন এর জন্য)

প্রনালিঃ-প্রথমে হাঁড়িতে তেল দিয়ে তেল হালকা গরম হলেই এতে পাঁচফোড়ন দিয়ে দিন, ৫ সেকেন্ড পর ১ টেবিল চামচ আদা ছেঁচা দিন (এর কারণ হল পাঁচফোড়ন তেলে বেশি রাখলেই তিতা হয়ে যায় )-এবার এতে মুরগির কিমা দিয়ে রান্না করুন ৪ থেকে ৫ মিনিত,এখন মিষ্টি কুমড়া, আলু টুকরা দিয়ে নাড়াচাড়া রান্না করুন ১০ থেকে ১২ মিনিট ।-এখন এতে লাউ টুকরা, পেঁপে টুকরা, ঝিঙা টুকরা , বাকি আদা ছেঁচা,দুধ, হাফ কাপ গরম পানি ,কাঁচামরিচ আর লবণ স্বাদমত দিয়ে মিডিয়াম আঁচে ঢাকনা লাগিয়ে রান্না করুন আরও ১০ মিনিট।-নামানোর আগে উপরে ঘি ছিটিয়ে দিন।পরিবেশন এর সময় ধনিয়া পাতা কুচি ছিটিয়ে দিন।পরোটা , রুটি কিংবা ভাতের সাথে পরিবেশন করুন

সবজি রুটি–

উপকরণ:ময়দাঃ ২ কাপপানিঃ ২ কাপলবণঃ স্বাদমতোতেলঃ ২ টেঃ চামচসবজিঃ ময়দার অনুপাতে (সবজির মধ্যে আলু, গাজর, পেঁপে, পটল, ক্যাসিকাম, কাঁচামরিচ ইত্যাদি নেওয়া যায়)

প্রণালী:-২ কাপ ময়দা, সব সবজী ইচ্ছামত অল্প করে ছিলে পাতলা কুঁচি কুঁচি করে ধুয়ে নিতে হবে।-কড়ায়ে ২ কাপ ( পরিমানমত পানি) পানি, লবন দিয়ে সবজী গুলো দিয়ে দিতে হবে।-তেল দিয়ে দিতে হবে।-পানি ফুঁটে সবজী সেদ্ধ হয়ে এলে ময়দা দিয়ে ভালো করে নেড়ে নেড়ে মিশিয়ে নিতে হবে।-ভালো করে খামির করে নামিয়ে নিতে হবে।-একটু ঠান্ডা হলে গরম অবস্থায় ভালো করে ময়ম দিতে হবে।-যদি পানি লাগে তা হলে প্রযোজনে কুসুম গরম পানি দিয়ে ময়দা মাখিয়ে নিতে হবে ।-একদম নরম মোলায়েম হবে।-এবারে ছোট ছোট গোলা করে পাতলা পাতলা করে রুটি বেলে নিতে হবে।-খুব সাবধান রুটি হালকা ভাবে বেলতে হবে তা না হলে ছিঁড়ে যেতে পারে।-হালকা জ্বালে রুটি ছেকে নিতে হবে।-ব্যাস,হয়ে গেলো মজার ভিটামিনে ভরপুর টেস্টি সবজী রুটি।

সবজি খিচুড়ি–

উপকরণ:চাল ৪ টেবিল চামচ,পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ,হলুদ গুঁড়ো ১/২ চা চামচ,পেঁপে , মিষ্টিকুমড়া , ব্রকলি , গাজর ,লাউ টুকরা সব মিলে আধা কাপ,মুগ ডাল ১ টেবিল চামচ,লবণ ১ চিমটি,ঘি / তেল ১ চা চামচ (ঘি দিলে স্বাদ বাড়ে, ডাক্তার অনুমতি দিলে ঘি দেবেন।),তেজপাতা / দারুচিনি ১ টুকরা,

প্রনালি:প্যানে তেল দিয়ে এতে তেজপাতা, দারুচিনি দিন।তারপর দিন পেঁয়াজ কুচি।অল্প ভেজে নিয়ে এতে হলুদ, ডাল আর সব সবজি দিয়ে নেড়েচেড়ে রান্না করুন ২-৩ মিনিট।এখন ধুয়ে ভিজিয়ে রাখা চাল দিয়ে নেড়েচেড়ে ১ কাপ গরম পানি দিয়ে মিডিয়াম আঁচে রান্না করুন ১০ থেকে ১২ মিনিট।১০ থেকে ১২ মিনিট পর সব সবজি সেদ্ধ হয়ে গেলে ঘুটনি দিয়ে ঘুটে নিন।খিচুড়ি তৈরি! এই খিচুড়ি আপনি চামচে করে খাওয়াতে পারেন।একদম ব্লেন্ড করে স্যুপের মত করেও খাওয়াতে পারেন।বাচ্চাদের খাবার প্রতি বেলায় তাজা তৈরি করে দেয়াই ভালো।ফ্রিজে রাখা খাবার বাচ্চাদেরকে খাওয়াবেন না।

শুঁটকির সবজি ভুনা–

উপকরণ:লইট্টা শুঁটকি- এক কাপ (আধা ইঞ্চি করে কাটা)পেঁয়াজ কাটা– দেড় কাপ মোটা ফালি করে কাটারসুন-আধা কাপ বড় বড় করে কাটাকাঁচা মরিচ– সাত-আটটি ফালি করে কাটাশুকনা মরিচ– সাত-আটটি (মাঝখানে কেটে এর বীজ ফেলে দিন)বেগুন, শিম, আলু- আধা কাপ (আধা ইঞ্চি করে কাটা)টমেটো- আধা কাপ(আধা ইঞ্চি করে কাটা)ফুল কপি- আধা কাপ (ফুলগুলো আধা ইঞ্চি করে ছাড়িয়ে নিন)জিরা গুঁড়া– আধা চা চামচহলুদ গুঁড়া– আধা চা চামচধনেপাতা কুঁচি– আধা কাপসয়াবিন তেল- আধা কাপলবণ- এক চা চামচ(স্বাদ অনুযায়ী কম বেশি দিতে পারেন)পানি- এক কাপ(এ ছাড়া আপনার ইচ্ছেমতো যেকোনো সবজি দিয়েই করতে পারেন। লক্ষ্য রাখবেন, শুঁটকি থেকে যেন সবজি বেশি না হয়, পরিমাণ হবে এমন- ১ ভাগ শুঁটকি দুই ভাগ সবজি।

যেভাবে পরিষ্কার করে প্রস্তুত করবেন শুঁটকি:ফুটন্ত গরম পানিতে শুঁটকি টুকরা গুলি এক মিনিট রেখে উঠিয়ে নিন।এবার ঠান্ডা পানি দিয়ে পাঁচ-ছয় বার ভালো করে ধুয়ে নিন।যদিও এখানে লইট্টা শুঁটকি বলেছি, চাইলে অন্য যেকোনো শুঁটকি দিয়েও করতে পারবেন।

প্রণালি:চুলায় মঝারি আঁচে পাত্র চাপিয়ে এতে তেল দিন। হালকা গরম হলে এতে টমেটো কুঁচি দিন ।এক মিনিট নেড়ে এতে কেটে রাখা পেঁয়াজ, রসুন ও শুকনা মরিচ দিন।এবার হালকা ভাজা হলে এতে লবণ দিয়ে নাড়তে থাকুন।টমেটো গলে গেলে এতে একে একে শুঁটকি, বাকি সবজি ও কাঁচা মরিচ দিন।এর মধ্যে জিরা ও হলুদ গুঁড়া দিয়ে পাঁচ মিনিট ধরে নাড়ুন ।ভাজা ভাজা হলে এতে এক কাপ পানি দিয়ে, চুলার আঁচ কমিয়ে ঢেকে দিন।পাঁচ মিনিট পর নেড়ে দিন।পানি শুকিয়ে এলে এর উপর ধনে পাতা কুঁচি ছড়িয়ে দিয়ে চুলা বন্ধ করে দিন।ডিশে ঢেলে পরিবেশন করুন গরম ভাতের সাথে শুঁটকি সবজি ভুনা।একবার খেয়েই দেখুন,বারে বারে খেতে মন চাইবে।