১) মাথায় রাখবেন ইলিশ মাছের ফ্লেভারটাই কিন্ত্ত আসল৷ তাই ইলিশ রান্নার সময় এমন কিছু উপকরণ ব্যবহার করবেন না , যা ইলিশের ফ্লেভারটাকেই নষ্ট করে দেয়৷ তবে সর্ষের কথা আলাদা৷এর ঝাঁঝের সঙ্গে ইলিশের একটা আবহমান কালের বোঝাপড়া৷ একটু স্ট্রং ফ্লেভারের হলেও তা ইলিশের আসল গন্ধটা অটুট রেখে তার স্বাদ বাড়িয়ে তোলে৷ তাই স্ট্রং ফ্লেভারের কোনও উপকরণ দিয়ে ইলিশ নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন , তা ইলিশের স্বাদ ও গন্ধকে কতটা সমৃদ্ধ করবে৷

২) ইলিশ মাছ রান্নার কিন্ত্ত তেমন কোনও ঝক্কি নেই৷ ইলিশ পরিষ্কার করে , আঁশ ছাড়িয়ে কেটে নুন হলুদ মাখিয়ে আধঘণ্টা রেখে দিন৷ তার পর সরষে ইলিশ , দই ইলিশ , বা ভাপা ইলিশ যা ইচ্ছে রাঁধুন৷

৩) যদি ইলিশ মাছ ভাজা খেতে চান তবেই একমাত্র কড়া করে ভাজুন৷ কিন্ত্ত অন্যান্য পদ রাঁধার সময় হাল্কা ভাজাই ভালো লাগবে৷ কড়া করে ভাজলে ইলিশের মধ্যে অন্যান্য মশলা ঢুকবে না৷ ফলে স্বাদ কিছুতেই ভালো হবে না৷ বরং ইলিশ মাছ একটু লালচে বাদামী রঙ ধরতে শুরু করলেই নামিয়ে নিন৷ ৪বাড়িতে সরষে ইলিশ বা দই ইলিশ ছাড়াও মাঝে মাঝেই হালকা ঝোল রাঁধেন ? তাহলে এবার হালকা ইলিশের ঝোল রাঁধার সময় গন্ধরাজ লেবুর পাতা ব্যবহার করুন৷ ঝোল ফুটতে শুরু করলে , নামানোর কিছুক্ষণ আগে গন্ধরাজ লেবুর পাতা দিন৷ বেশিক্ষণ ফোটাবেন না কিন্ত্ত৷ তাহলে তেতো হয়ে যাবে৷ আটপৌরে ইলিশের পদ স্বাদ একটু কেতাবি হয়ে উঠবে এই সামান্য টিপসটি ব্যবহার করলেই৷ আবার একটু ঝাল মশলায় ইলিশ রাঁধতে চাইলে , মাংস রান্নার সময় যেভাবে গ্রেভি বানান , সেরকম ভাবে রান্না করুন৷

৫) ইলিশ কিন্ত্ত এমন একটা মাছ যা সহজেই নানা ফল দিয়েও রান্না করা যেতে পারে৷ আনারস দিয়ে ইলিশের পদ রান্নার কথা শুনে থাকবেন৷ আনারস ছাড়াও আঙুর আপেলের মতো ফল দিয়ে ইলিশের নানা এক্সপেরিমেন্টাল পদ রান্না করা যায়৷

৬) মাইক্রো আভেনেও ইলিশ রাঁধতে পারেন৷ তবে তার ঘণ্টা দুই আগে নুন -হলুদ মাখিয়ে রাখুন৷ মাইক্রো আভেনে সরষে ইলিশ রাঁধতে হলে ইলিশের গায়ে একেবারে সরষে বাটা মাখিয়ে তারপর আভেনে দিন৷