মজার রান্না ডেস্ক: কি মনে হয় এই বৃষ্টির পর আলু আর পেয়াজের দাম আরও বারতে পারে? তাহলে আর ভয় না করে কিছু আলু পেয়াজ এখনি সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন চাইলে। তবে আলু ও পেঁয়াজ এই দুটো কখনও একসঙ্গে সংরক্ষণ করবেন না।

পেঁয়াজ ইথিলিন গ্যাস তৈরি করে বাতাসে ছড়িয়ে দেয়। এই গ্যাস যেকোনো সবজি বা ফলকে পাকিয়ে দেয় দ্রুত। তাই পেঁয়াজের সাথে আলু রাখলে তা দ্রুত পঁচে নষ্ট হয়ে যায়। এই গ্যাসের কারণে আলুতে দ্রুত অঙ্কুরোদগম হয়ে তা খাওয়ার অযোগ্য হয়ে যেতে পারে। সেসব অঙ্কুরে প্রচুর পরিমাণে গ্লাইকোয়ালকেলোয়েড নামের উপাদান থাকে, যা মস্তিষ্কের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। তবে সেসব অঙ্কুর কেটে ফেলে দিয়ে আলু খেলে তাতে কোনও ক্ষতি হয় না। এছাড়া পেঁয়াজ ও আলু দুটো সবজি থেকেই আর্দ্রতা সৃষ্টি হয়, যা দুটো সবজিকেই নষ্ট করে দেয় সহজে। তাই খোলা ও ঠাণ্ডা জায়গায় যেখানে বাতাস থাকে, সেখানে এই দুটো সবজি আলাদা সংরক্ষণ করুন।

আলু সংরক্ষণ করা উচিত ভাঁড়ার ঘর বা আলাদা ঘরে, অথবা কাপবোর্ড বা খাদ্যসামগ্রী রাখার আলমারিতে। এই জায়গাগুলো অন্ধকার, ঠাণ্ডা ও শুকনো। তাই আলু এসব জায়গায় ভালো থাকে। সবচেয়ে ভালো উপায় হলো আলুক স্বাভাবিক তাপমাত্রার চেয়ে কম, তবে রেফ্রিজারেটরের তাপমাত্রার চেয়ে বেশি তাপমাত্রায় রাখা। পেঁয়াজও এমন জায়গায় রাখতে হবে, যেখানে বাতাস থাকে। কাগজের ব্যাগ বা তারের ঝুড়িতে রাখা যায় পেঁয়াজ। তবে রেফ্রিজারেটরে রাখবেন না পেঁয়াজ।