খুব সহজে নরম তুলতুলে ময়দা সুজির চিতই পিঠা - Mojar Ranna খুব সহজে নরম তুলতুলে ময়দা সুজির চিতই পিঠা - Mojar Ranna

খুব সহজে নরম তুলতুলে ময়দা সুজির চিতই পিঠা

;
  • প্রকাশিত: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৯:১৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ বছর আগে

মজার রান্না ডেস্ক: আমাদের দেশে চিতই পিঠা চালের গুড়ি দিয়ে তৈরি করা হয়ে থাকে। চালের গুড়ি দিয়ে বানানো চিতই পিঠা গরম গরম খেতে হয়। ঠাণ্ডা হয়ে গেলে শক্ত হয়ে পড়ে। আজ যে চিতই পিঠার রেসিপি দেওয়া হচ্ছে তা নরম তুলতুলে হবে এবং ঠাণ্ডা হলেও শক্ত হবে না। দেখে নিন রেসিপিটি।

 

উপকরণ:

ময়দা দেড় কাপ বা ১৬৫ গ্রাম।

সুজি দেড় কাপ বা ১৬৫ গ্রাম।

চিনি ১ টেবিল চামচ বা ১৫ গ্রাম।

লবণ ১ চা চামচ বা ৫গ্রাম।

বেকিং পাউডার ১ চা চামচ বা ৫ গ্রাম।

ইস্ট ২ চা চামচ বা ১০ গ্রাম।

পানি উষ্ণ তবে গরম নয় সাড়ে চার কাপ বা ৪৯৫ গ্রাম।

প্রস্তুতি:

প্রথমে পানি বাদে সকল উপকরণ ভালো ভাবে মিশিয়ে নিতে হবে।

অল্প অল্প করে ঐ মিশ্রণে উষ্ণ পানি ঢেলে মিশ্রণকে নরম থকথকে করে নিতে হবে।মেশিন থাকলে ৩০ সেকেন্ড ঐ মিশ্রণ ঘুটে নিন।

না থাকলে কাঠে চামচ বা অন্য কিছু দিয়ে ভালো ভাবে ঘুটে মসৃণ করে নিন।মনে রাখবেন এই মিশ্রণ পানির মত পাতলা যেন না হয় আবার যেন ঘনও না হয়।

ঘুটাঘুটির পর পরিষ্কার টাওয়াল দিয়ে ঢেকে গরম কোন স্থানে ২০ থেকে ৩০ মিনিট রেস্টে রাখুন।

২০ /৩০ মিনিট পর লক্ষ্য করুন যে ঐ মিশ্রণের উপর বুদবুদ দেখা যায় কিনা? যদি বুদবুদ দেখা যায় তাহলে বুঝতে হবে আপনার মিশ্রণ ঠিক হয়েছে। যদি বুদ বুদ না হয় তাহলে আরো অল্প পানি মিশিয়ে নিন এবং অপেক্ষা করুন। বুদবুদ আসা পর্যন্ত।এবার চুলার মধ্যে মৃদু তাপে ননস্টিক ফ্রাই পেন গরম করুন।

গরম হলে ডাবু হাতার চামচ দিয়ে এক চামচ মিশ্রণ ননস্টিক প্যানের মধ্যখানে গোল করে ছড়িয়ে দিন।

কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন। যখন দেখবেন পিঠার মধ্যে অসংখ্য ছিদ্র দেখা যাচ্ছে এবং কাচা ভাব চলে গেছে তখন খন্তা দিয়ে আলতো করে ফ্রাইপ্যান থেকে নামিয়ে নিন।

নামিয়ে নিয়ে পরিষ্কার টাওয়ালের মধ্যে একটি একটি করে রাখুন। গরম অবস্থায় একটির উপর আরেকটি রাখবেন না। ঠাণ্ডা হবার পর একটির উপরে আরেকটি রাখতে পারবেন।

এবার ফ্রাই প্যানকে উলটো করে ট্যাপের ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন।এর পর ৭ নং নির্দেশের মত করতে থাকুন।

এই গুলো ঘরে রেখে ২ দিন পর্যন্ত খাওয়া যাবে। সকাল বিকালের নাস্তায় চায়ের সাথে খেতে পারেন।

 

গরম থাকা অবস্থায় বাটার (মাখন) লাগিয়ে বা বাটার মধু লাগিয়ে খেতে পারেন। ঠাণ্ডা হলে শুধু মধু বা জালিগুড় মিশিয়ে খেতে পারবেন।

আবার রান্না করা গোস্তের তরকারী দিয়েও খেতে পারবেন। আবার জ্যাম জেলি বা কন্ডেন্সমিল্ক দিয়ে বা কাচা মরিচ/পুদিনা পাতার চাটনি দিয়েও খেতে পারবেন।

 

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : আয়ান আইটি