গরমে প্রাণ জুড়াতে ২৬ রকমের শরবতের রেসিপি একসঙ্গে | Mojar Ranna গরমে প্রাণ জুড়াতে ২৬ রকমের শরবতের রেসিপি একসঙ্গে | Mojar Ranna

গরমে প্রাণ জুড়াতে ২৬ রকমের শরবতের রেসিপি একসঙ্গে

;
  • প্রকাশিত: ১০ ডিসেম্বর ২০১৭, ৮:৫৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ বছর আগে

মজার রান্না ডেস্ক: আপনাদের জন্য এখন দেওয়া হচ্ছে আরো একটি বড় রেসিপিগুচ্ছ। এই রেসিপিগুচ্ছটি সাজানো্ হয়েছে নানা ধরনের ২৭ রকমের শরবতের রেসিপি দিয়ে। অতিথি আপ্যায়নে বা নিজেরাই পান করতে শরবতের হরেক রকমের রেসিপি একসঙ্গে।

পাকা আমের লাচ্ছি

উপকরণ :

১. পাকা আম ১টা,

২. চিনি ১ টেবিল চামচ,

৩. মিষ্টি দই ১ কাপ,

৪. পেস্তা বাদাম ২/৩টা (কুচি করা),

৫. এলাচ গুঁড়ো ১চিমটি।

প্রণালি :

প্রথমে আম ভাল করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে আঁটি বের করে নিতে হবে।

এরপর ব্লেন্ডারে আম ব্লেন্ড করে নিয়ে তা কাঁচের বাটিতে ঢেলে রাখুন।

এবার দই, চিনি আর বরফ কুচি একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। 

এরপর দইয়ের মিশ্রণে আম ঢেলে আরও একবার ব্লেন্ড করে নিন।

এবার গ্লাসে নিয়ে এলাচ গুঁড়ো ও পেস্তা বাদাম ছড়িয়ে দিন।

হয়ে গেল মজাদার পাকা আমের লাচ্ছি।

ঠান্ডা তরমুজের লাচ্ছি

উপকরণ :

১. ঠান্ডা তরমুজ ২ কাপ,

২. ঠান্ডা টক দই ২ কাপ,

৩. চিনি পছন্দমতো,

৪. বরফের টুকরা ৮টি।

প্রণালি :
> তরমুজের বিচি ছাড়িয়ে নিন। সব একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। ওপরে আবার বরফ দিয়ে পরিবেশন করুন।

ফুটির শরবত

উপকরণ :
১. ফুটি (বাঙ্গি) ১ কাপ,
২. লেবুর রস ১ টেবিল চামচ,


৩. চিনি ৪ টেবিল চামচ,
৪. বরফকুচি প্রয়োজনমতো ও
৫. পানি ১ কাপ।

প্রণালি :
> পাকা ফুটি (বাঙ্গি) ছোট ছোট টুকরা করে এক কাপ নিন। পানি, চিনি, লেবুর রস, টুকরো করা ফুটি একসঙ্গে ব্লেন্ড করে বরফকুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

বেলের লাচ্ছি

উপকরণ :
১. বড় পাকা বেল ১টি,
২. মিষ্টি দই ৪ কাপ,


৩. ঠান্ডা পানি ৪-৫ কাপ,
৪. বরফ কুচি ১ কাপ,
৫. মালাই ১ কাপ।

প্রণালি :
> বেল ভেঙে খোসা থেকে ছাড়িয়ে আঠা ও বিচি ফেলে ৩ কাপ পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন। মোটা চালুনিতে চেলে নিয়ে বেলের সঙ্গে বাকি পানি ও দই মিশিয়ে বরফ কুচি দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে মালাই দিয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করতে হবে।

চিড়ার লাচ্ছি

উপকরণ :
১. চিড়া আধা কাপ,
২. ঘন ঠান্ডা দুধ ৩ কাপ,
৩. বরফকুচি প্রয়োজনমতো,


৪. মিষ্টি দই ২ কাপ ও
৫. গোলাপজল সিকি চা-চামচ (না দিলেও হবে)।

প্রণালি :
> চিড়া ঝেড়ে-বেছে ভালো করে ধুয়ে ভিজিয়ে রাখুন ২ ঘণ্টার মতো। তারপর পানি ছেঁকে সবকিছু ব্লেন্ডারে দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। ওপরে আবার বরফ বা আইসক্রিম দিয়ে পরিবেশন করুন চিড়ার লাচ্ছি।

খেজুর ও কফির মিল্কশেক

উপকরণ :
১. বিচি ছাড়া খেজুর এক কাপ,
২. কফি ১০ টেবিল চামচ,
৩. দুধ ছয় কাপ,


৪. সবুজ এলাচ পাঁচ-ছয়টি,
৫. চিনি তিন টেবিল চামচ,
৬. ক্রিম দুই টেবিল চামচ,
৭. বরফ কুচি পরিমাণমতো।

প্রণালি :
> প্রথমে একটি প্যানে পানি দিয়ে তাতে কফি গুঁড়া দিয়ে ভালো করে নাড়তে থাকুন। এখন এতে চিনি ও সবুজ এলাচ দিন। চিনি ভালো মতো গলে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে মিশ্রণটি ঠান্ডা করুন। এবার এতে বিচি ছাড়া খেজুর ও সামান্য দুধ মিশিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। এরপর এতে বরফ কুচি, বেশি করে দুধ ও ক্রিম দিয়ে আবারও ব্লেন্ড করুন। মিশ্রণটি গ্লাসে ঢেলে এর উপরে সামান্য কফি গুঁড়া ও খেজুর কুচি ছড়িয়ে পরিবেশন করুন ভিন্ন স্বাদের মিল্কশেক।

কলার স্মুদি

উপকরণ :
১. কলা ১ কাপ,
২. ভ্যানিলা আইসক্রিম ৪ স্কুপ বা ১ কাপ,
৩. মিষ্টি দই ১ টেবিল চামচ,


৪. চিনি ২ চা-চামচ বা স্বাদমতো,
৫. ঠান্ডা দুধ ১ কাপ,
৬. হরলিকস ২ টেবিল চামচ,
৭. বরফকুচি ২ টুকরা।

প্রণালি :
> সব উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। বরফকুচি দিয়ে স্মুদি পরিবেশন করুন।

টক দইয়ের শরবত

উপকরণ :
১. টক দই পাঁচ কাপ,
২. পুদিনা পাতা সাত-আটটি,
৩. কাঁচামরিচ কুচি দুটি,


৪. ঠান্ডা পানি পরিমাণমতো,
৫. চিনি দুই টেবিল চামচ,
৬. বরফ কুচি প্রয়োজনমতো,
৭. লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি :
> প্রথমে একটি ব্লেন্ডারে টক দই, ঠান্ডা পানি, বরফ কুচি, পুদিনা পাতা, কাঁচামরিচ কুচি, চিনি ও লবণ একসঙ্গে নিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন। এবার গ্লাসে ঢেলে কিছুক্ষণ ফ্রিজে রেখে দিন। পরিবেশনের আগে গ্লাসের ওপর সামান্য বরফ কুচি ছড়িয়ে দিন। ব্যস, খুব সহজেই তৈরি হয়ে গেল ঠান্ডা ঠান্ডা টক দইয়ের শরবত।

আম পান্না

উপকরণ :
কাঁচা আম ৫টি, ঠান্ডা পানি ২ গ্লাস,
সিরাপ বা চিনি ১ কাপ,


সবুজ রং সামান্য ও
বরফকুচি প্রয়োজনমতো।

প্রণালি :
> প্রথমে কাঁচা আম ভালো করে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে বিচি ফেলে স্লাইস করে নিন। ১ কাপ পানি দিয়ে আমের স্লাইস ব্লেন্ডারে মসৃণ করে ব্লেন্ড করে ছেঁকে নিন। এবার আমের রসে ঠান্ডা পানি, চিনি, সামান্য (সবুজ) খাবার রং ও বরফকুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

চকলেট মিল্ক শেক

উপকরণ :
১. ভ্যানিলা আইসক্রিম ২ স্কুপ,
২. চকলেট ব্রাউনি ক্রাম্ব ২০০ গ্রাম,


৩. ঠান্ডা দুধ ৪০০ মিলি,
৪. চকলেট হরলিকস ২ টেবিল চামচ।

প্রণালি :
> আইসক্রিম ছাড়া সব উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ডারে ভালোভাবে ব্লেন্ড করুন। আইসক্রিম দিয়ে পরিবেশন করুন।

কলা – দুধের শরবত

উপকরণ :
১. পাকা কলা ১ হালি ,
২. ঠান্ডা দুধ ১ গ্লাস ,


৩. ঠান্ডা পানি ১ কাপ ,
৪. চিনি ৪ টেবিল চামচ ,
৫. দই (ইচ্ছা হলে ) ২ টেবিল চামচ।

প্রণালি :
> উপরের সব উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ড করে পরিবেশন করুন।

ড্রাই ফ্রুট লাচ্ছি

উপকরণ :
১. টকদই তিন কাপ,
২. গুড়ের সিরাপ এক কাপ,
৩. দুধ এক কাপ,
৪. আদার শুকনো গুঁড়ো সামান্য,
৫. খেজুর কুচি তিনটি,


৬. কেশোনাট কুচি দুই টেবিল চামচ,
৭. কাজুবাদাম কুচি দুই টেবিল চামচ,
৮. পেস্তাবাদাম কুচি দুই টেবিল চামচ,
৯. আখরোট কুচি দুই টেবিল চামচ,
১০. চিনাবাদাম কুচি দুই টেবিল চামচ,
১১. কিশমিশ দুই টেবিল চামচ,
১২. চিনি স্বাদমতো,
১৩. কনডেন্সড মিল্ক তিন টেবিল চামচ,
১৪. লবণ সামান্য,
১৫. জাফরান সামান্য।

প্রণালি :
> প্রথমে একটি প্যানে আমন্ড, কাজুবাদাম, চিনাবাদাম, পেস্তাবাদাম ও আখরোট হালতা ভেজে ঠান্ডা করে একটি ব্লেন্ডারে নিন। এবার এর সঙ্গে খেজুর, কিশমিশ ও অল্প দুধ মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন। একটি বাটিতে ঢেলে এর মধ্যে টকদই, গুড়ের সিরাপ ও দুধ দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এর মধ্যে সামান্য চিনি, লবণ ও জাফরান দিন। সব শেষে কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে আবারও ভালো করে ব্লেন্ড করুন। এই মিশ্রণে পানি মেশাবেন না। ৩০ মিনিটের জন্য ফ্রিজে রেখে দিন। এবার গ্লাসে ঢেলে এর ওপর শুকনো আদার গুঁড়ো ছড়িয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন ড্রাই ফ্রুট লাচ্ছি।

তরমুজের শরবত

উপকরণ :
১. বিচি ফেলে তরমুজের টুকরো ৪-৫টি,
২. বিট লবণ সামান্য,
৩. চিনি ৪ টেবিল চামচ,


৪. পানি ১ গ্লাস ও
৫. লেবুর রস ২ টেবিল চামচ।

প্রণালি :
> ওপরের সব উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ডারে দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। বরফকুচি দিয়ে গ্লাসে পরিবেশন করুন।

নোনতা লাচ্ছি

উপকরণ :
১. টক দই ২ কাপ,
২. ঠান্ডা পানি ১ কাপ,


৩. লবণ আধা চা-চামচ,
৪. বিট লবণ ১ চিমটি,
৫. জিরার গুঁড়া ১ চিমটি।

প্রণালি :
> দইসহ সব উপকরণ একসঙ্গে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে রেফ্রিজারেটরে রেখে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন ঠান্ডা নোনতা লাচ্ছি।

পাকা বেলের দিল ঠান্ডাই

উপকরণ :
১. পাকা বেল ১টি,
২. চিনি ১ কাপ ও


৩. ঠান্ডা পানি ৩ গ্লাস।

প্রণালি :
> বেলের বিচি ফেলে মোটা চালুনিতে চেলে নিন। এবার ওপরের সব উপকরণ দিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। শরবত ঘন হলে আরও পানি মেশাতে হবে। গ্লাসে পরিবেশন করুন।

বেলের শরবত

উপকরণ :
১. বেল ১টা,
২. দুধ বা দই আধা কাপ,


৩. পানি ৪ কাপ,
৪. চিনি পরিমাণমতো।

প্রণালি :
> যেদিন শরবত বানাবেন তার আগের দিন রাতে অথবা অন্তত ১২ ঘণ্টা বেল ভিজিয়ে রাখুন।

> পানি থেকে তুলে বেলের আঠা ও বিচি ফেলে ভালো করে চটকে ছেঁকে নিন।

> দইয়ের সঙ্গে চিনি ও পানি মিশিয়ে ভালো করে ঘেঁটে মিশিয়ে নিন।

> এবার বেলের মধ্যে দই, পানি, চিনির মিশ্রণ ঢেলে ভালো করে মিশিয়ে রফকুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

লেবু পানি

উপকরণ :
১. পাতিলেবু ৪টি,
২. পানি ১ লিটার,
৩. চিনি ১ কাপ,


৪. গোলমরিচ ১ টেবিল চামচ,
৫. বিটলবণ ১ চা-চামচ,
৬. আইস কিউব।

প্রণালি :
> একটা পাত্রে লেবুগুলি কেটে রস বের করে নিন।

> আলাদা একটা পাত্রে পানি দিয়ে আঁচে বসান। পানি গরম হয়ে এলে লেবুর রসটা ভালোভাবে মেশান।

> এর মধ্যে চিনিটা ঢেলে দিন। যতক্ষণ না চিনিটা গলে যাচ্ছে ততক্ষণ নাড়তে থাকুন।

> বিটলবণ ও গোলমরিচ দিয়ে ভালোভাবে নাড়তে থাকুন।

> নামিয়ে ঠান্ডা করে পাত্রে ঢেলে পরিবেশন করুন।

স্ট্রবেরি লাস্যি

উপকরণ :
১. টক দই ২ কাপ,
২. স্ট্রবেরি ১ কাপ,
৩. ফ্রেশ ক্রিম আধা কাপ,


৪. এলাচ গুঁড়ো ১ চিমটি,
৫. চিনি ৪ টেবিল চামচ,
৬. ঠান্ডা পানি আধা কাপ,
৭. পেস্তা ২ টেবিল চামচ,
৮. বরফ প্রয়োজনমতো।

প্রণালি :
> টক দই ভালো করে ফেটিয়ে নিন। স্ট্রবেরি আর পেস্তা আলাদা আলাদা করে কুচিয়ে রাখুন।

> এবার মিক্সিতে একে একে বরফ কুচি, ফেটানো টক দই, স্ট্রবেরি কুচি, এলাচ গুঁড়ো, চিনি আর ফ্রেশ ক্রিম দিয়ে মিশিয়ে নিন। দরকারে সামান্য পানি দিতে পারেন।

> এবার গ্লাসে স্ট্রবেরি লস্যি ঢেলে উপর থেকে পেস্তা কুচি ছড়িয়ে ঠান্ডা ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

ফ্রুট পাঞ্চ

উপকরণ :
১. কমলার রস ২ ক্যান (ফ্রোজেন),
২. লেমোনেড ২ ক্যান (ফ্রোজেন, ঘন),
৩. আনারস জুস ১ ক্যান,


৪. লাইম সোডা ১ লিটার,
৫. স্ট্রবেরি ২ কাপ,
৬. চিনি ৩ কাপ,
৭. পানি ৩ কাপ।

প্রণালি :
> অরেঞ্জ জুস, লেমোনেড ও পাইন্যাপেল জুস একসঙ্গে ভালো করে নেড়ে মিশিয়ে নিন।

> এবারে পানি ও চিনি একটা সসপ্যানে একসঙ্গে ফুটিয়ে নিন। ৫ মিনিটের মধ্যে চিনি ভালো করে গলে মিশে যাবে। ঠান্ডা করে এই সিরাপ ফ্রুট জুসের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে নিন।

> পরিবেশন করার সময় একটা পাঞ্চ বাটিতে ঠান্ডা ফ্রুট জুস ঢেলে সোডা মিশিয়ে নিন। ওপরে স্ট্রবেরি ফ্লোট করে পরিবেশন করুন।

অরেঞ্জ লাচ্ছি

উপকরন :
১. কমলা রস ১কাপ,
২. মাল্টা ২টি(খোসা ফেলে ছোট করে কাটা),


৩. দারচিনি গুঁড়া ১/২ চা চামচ,
৪. চিনি ২ টেবিলচামচ,
৫. টকদই ২ কাপ।

প্রণালি :
> আইস কিউবস বাদে সব উপকরণ একসাথে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এরপর আইস কিউবস মিশিয়ে ১০ সেকেন্ড ব্লেন্ড করলেই হয়ে যাবে। সাথে পরিবেশন করতে হবে।

লিচুর শরবত

উপকরণ :
১. ২০টি লিচু (বীচি ছাড়্রা),
২. এক টেবিল চামচ চিনি,
৩. এক চা চামচ লবণ,


৪. ৩/৪ চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়া,
৫. এক চা চামচ লেবুর রস,
৬. এক কাপ পানি।

প্রণালি :
> অর্ধেক লিচু রেখে সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। গ্লাসে ঢেলে ফ্রিজে রাখুন। পরিবেশনের আগে আস্ত লিচুগুলো গ্লাসে দিয়ে পরিবেশন করুন।

তরমুজ ও স্ট্রবেরির স্মুদি

উপকরণ :
১. স্ট্রবেরি এক কাপ
২. তরমুজ কিউব করে কাটা দুই কাপ
৩. এলাচ দুটি


৪. গোলমরিচের গুঁড়া সামান্য
৫. পানি এক কাপ
৬. চিনি আধা কাপ ও বরফ আধা কাপ

প্রণালি :
> প্রথমে তরমুজের বিচি ছাড়িয়ে একটি ব্লেন্ডারে নিন। এবার এতে কাটা স্ট্রবেরি দিন। এক কাপ পানি দিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এবার ছাঁকনি দিয়ে মিশ্রণটি ছেঁকে নিন। আবার এই মিশ্রণ ব্লেন্ডারে নিয়ে এর সঙ্গে বরফ কুচি, এলাচ ও চিনি মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন। এর পর এই মিশ্রণ একটি গ্লাসে ঢেলে এর ওপর সামান্য গোলমরিচের গুঁড়া ছড়িয়ে ঠাণ্ডা ঠাণ্ডা পরিবেশন করুন তরমুজ ও স্ট্রবেরির স্মুদি।

তরমুজের জুস

উপকরণ :
১. তরমুজের টুকরো ২ কাপ,
২. বরফ কুচি ২ কাপ,
৩. বিটলবণ অল্প,


৪. লেবুর রস সামান্য,
৫. পুদিনা পাতা কয়েকটি,
৬. চিনি পরিমাণমতো।

প্রণালি :
> প্রথমে তরমুজের খোসা ছাড়িয়ে বিচিগুলো ফেলে দিন। এবার ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিন। এাবর একটি ব্লেন্ডারে টুকরো করা তরমুজ, বিট লবণ, লেবুর রস, কয়েকটি পুদিনার পাতা এবং চিনি দিয়ে ব্ল্যান্ড করে নিন। এখন এটি একটি ছাকনি দিয়ে ছেঁকে নিন। এবার বরফ কুচি দিয়ে গ্লাসে ঢেলে টেবিলে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

জিরা-পুদিনা শরবত

উপকরণ :
১. দই ১ কাপ,
২. চিনি ১ টেবিল চামচ,
৩. লবন-১/২ চা চামচ,


৪. জিরা- ১ চা চামচ,
৫. পুদিনার রস- ১ চা চামচ,
৬. পানি ও বরফ।

প্রণালি :
> প্রথমে শুকনো জিরা তাওয়ায় ভেজে গুঁড়া করে নিন। এবার দই, লবণ ও চিনি একসঙ্গে ব্লেন্ড করুন। দইয়ের মিশ্রণে পানি, বরফ কুচি, জিরা গুড়া এবং পুদিনা পাতা দিয়ে একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এবার পুদিনা পাতা দিয়ে পরিবেশন করুন জিরা-পুদিনার শরবত।

লেবু পুদিনার শরবত

উপকরণ :
১. ১ টেবিল চামচ লেবুর রস
২. আধা কাপ পুদিনা পাতা


৩. ১ চা চামচ জিরা গুঁড়ো
৪. লবণ স্বাদ মতো

প্রণালি :
> পুদিনা পাতা, লেবুর রস এবং ২ টেবিল চামচ পানি একটি মিক্সারে নিয়ে মিহি করে ব্লেন্ড করে নিন।
> একটি বাটিতে নিন। এতে ২ কাপ পানি এবং জিরা গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন।

> এবার ২টি গ্লাসে ঢেলে পরিবেশন করুন লেবু-পুদিনার শরবত। ডায়ারিয়া বা ডিহাইড্রেশনের সমস্যায় দিনে ৩ বার পান করতে পারেন।

পুদিনা ও টক দই শরবত

উপকরণ
১. পুদিনা পাতা এক কাপ,
২. টক দই ২৫০ মিলিলিটার,
৩. ধনিয়াপাতা আধা কাপ,
৪. কাঁচামরিচ কুচি দুটি,


৫. কাঁচা আম দুই টুকরা,
৬. গোলমরিচের গুঁড়া সামান্য,
৭. বরফ কুচি সামান্য,
৮. লবণ স্বাদমতো।

প্রণালি :
> প্রথমে পুদিনা পাতা ও ধনিয়াপাতা কুচি, টক দই, কাঁচামরিচ কুচি, কাঁচা আম, গোলমরিচের গুঁড়া ও লবণ দিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন। আধা কাপ পানি দিয়ে আবারও ব্লেন্ড করে নিন। এবার ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে একটি গ্লাসে মিশ্রণটি ঢেলে নিন। ওপরে সামান্য বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন ঠাণ্ডা পুদিনা-টক দই শরবত।

কাঁচা আমের বোরহানি

উপকরণ :
১. ঝুরি করা কাঁচা আম ২ কাপ (বেটে নিতে হবে),
২. পানি আধা কাপ, টক দই ১ কাপ,
৩. চিনি আধা কাপ বা স্বাদমতো,


৪. লবণ দেড় চা-চামচ বা স্বাদমতো,
৫. কাঁচা মরিচ বাটা ১ চা-চামচ,
৬. বিট লবণ সিকি চা-চামচ,
৭. রসুনকুচি ১ টেবিল চামচ,
৮. পুদিনা পাতার কুচি সিকি কাপ,
৯. সরষে বাটা বা গুঁড়া ১ চা-চামচ,
১০. ভাজা জিরার গুঁড়া ১ চা-চামচ,
১১. ভাজা লাল মরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ,
১২. সাদা গোল মরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ,
১৩. ভাজা ধনিয়াগুঁড়া ১ চা-চামচ ও
১৪. বরফকুচি পরিমাণমতো।

প্রণালি :
> সমস্ত উপকরণ একত্রে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে তারের চালুনি দিয়ে ছেঁকে নিন। আইসক্রিম দিয়ে পরিবেশন করুন ঠান্ডা কাঁচা আমের বোরহানি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : আয়ান আইটি