সঞ্জয় দত্তের নিজের রেসিপি 'চিকেন সঞ্জু বাবা' তৈরি শিখে নিন! - Mojar Ranna সঞ্জয় দত্তের নিজের রেসিপি 'চিকেন সঞ্জু বাবা' তৈরি শিখে নিন! - Mojar Ranna

সঞ্জয় দত্তের নিজের রেসিপি ‘চিকেন সঞ্জু বাবা’ তৈরি শিখে নিন!

;
  • প্রকাশিত: ৬ মার্চ ২০২০, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ২ বছর আগে

মজার রান্না ডেস্ক: পর্দার চরিত্রগুলো দেখে বোঝার উপায় নেই যে সঞ্জয় দত্ত বাস্তব জীবনে একজন উঁচু মানের ভোজনরসিক এবং একজন সিদ্ধ রাঁধুনিও বটে। এতটাই পাকা রাঁধুনি যে মুম্বাইয়ের বিখ্যাত নূর মোহাম্মদি হোটেলে তার নামের একটি খাবারই আছে- চিকেন সঞ্জু বাবা।

চিকেন সঞ্জু বাবা এখনো নূর মোহাম্মদি হোটেলের সবচেয়ে জনপ্রিয় খাবারের মধ্যে একটি। যারা খেতে ও ঘুরতে ভালোবাসেন, তাদের জন্য মুম্বাই ট্যুরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হতে পারে চিকেন সঞ্জু বাবা।

যেভাবে তৈরি করবেন চিকেন সঞ্জু বাবা

চিকেন সঞ্জু বাবা খাওয়ার জন্য আপনাকে মুম্বাইয়ের নূর মোহাম্মদি হোটেলেই যেতে হবে এমন নয়। যদিও খালিদ হাকিম কখনো চিকেন সঞ্জু বাবা বানানোর পুরো কায়দা খোলাসা করেননি, তার রেস্টুরেন্টের একটি বোর্ডে স্পষ্টভাবে এর উপকরণসমূহ লেখা আছে। এর সাহায্যেই অনেকে তৈরি করেছেন তাদের নিজস্ব ‘চিকেন সঞ্জু বাবা’। চলুন দেখে নেই এর রন্ধনপ্রণালী।

যা যা উপকরণ লাগবে

বড় টুকরা করা মুরগির মাংস, তেল ও ঘি পরিমাণ মতো, টক দই এক কাপ, কাজুবাদামের পেস্ট এক কাপ, কাশ্মীরি লাল মরিচ, জাফরান, আস্ত ধনিয়া, আস্ত জিরা, দুটি বড় পেঁয়াজ কুচি, এলাচ, তেজপাতা, সবুজ পেঁয়াজ (ইচ্ছামতো), কুচি করে কাটা আদা ও লবণ পরিমাণমতো।

রান্নার প্রক্রিয়া

মনে রাখবেন, এই রেসিপির মূল আকর্ষণ হলো, এতে সব ‘আস্ত মশলা’ ব্যবহার করা হয়েছে, দোকান থেকে কেনা পাউডার মশলা না। আস্ত মশলাগুলোই এই খাবারকে এত মজাদার করে। পাউডার মশলায় আপনি রান্না করতে পারেন, কিন্তু এতে চিকেন সঞ্জু বাবার আসল ফ্লেভারটি আর থাকবে না।

প্রথমেই একটি প্যান গরম করে এতে আপনার পছন্দের পরিমাণমতো ঘি ও তেল ঢালুন। তবে অন্যান্য মুরগির চেয়ে এই রেসিপিতে তেল আর ঘিয়ের পরিমাণ বেশি থাকবে। তেল ও ঘিয়ের মিশ্রণ গরম হলে এতে ঢেলে দিন কয়েকটি আস্ত জিরা। অল্প নাড়াচাড়া করে এতে দিন শুকনো এলাচি, ৫-৬টি কাশ্মীরি মরিচ, ৩-৪টি তেজপাতা এবং ভালোভাবে নাড়ুন। এই রেসিপিতে খুবই সামান্য মশলা ব্যবহার করা হয়। তাই প্রতিটি আস্ত মশলা আপনি আপনার রুচি অনুযায়ী বাড়াতে-কমাতে পারেন।

সব একটু ভাজা ভাজা হয়ে আসলে পেঁয়াজ কুচিগুলো ছেড়ে দিন। এ সময় পরিমাণমতো লবণ দিন, যাতে পেঁয়াজগুলো তাড়াতাড়ি ভাজা হয়ে যায়। পেঁয়াজ হালকা সোনালি রঙ হয়ে গেলে এতে দিন স্প্রিং অনিয়ন বা সবুজ পেঁয়াজ ও কুচি করে রাখা আদা। এই মিশ্রণকে ৩০-৪০ সেকেন্ড চুলার মধ্যম তাপমাত্রায় নাড়ুন।

তেল ছাড়তে শুরু করলে এতে কেটে রাখা মুরগির টুকরোগুলো দিয়ে দিন। মুরগি ছুরি দিয়ে কেটে কেটে নিতে পারেন, এতে মশলা সোজা এর ভেতরে যাবে।

মশলার সাথে মুরগির টুকরোগুলো মেশানোর পর এতে দিন ধনিয়া ও জাফরান গুঁড়া। আবারো কিছুক্ষণ মুরগিটি মশলার সাথে মেশান। এরপর ঢালুন আগে থেকে ফেটানো ১ কাপ টক দই ও ১ কাপ কাজুবাদাম পেস্ট। কাজুবাদাম পেস্টের জন্য কয়েকটি কাজুবাদামকে পানির সাথে মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিলেই হবে।

এবারে মুরগিরর সাথে কিছু টমেটোর টুকরা দিয়ে দিন, লবণ চেখে নিন। যদি কম মনে হয়, তাহলে আরেকটু লবণ দিতে পারেন। দই ও কাজুবাদাম পেস্টের কারণে এখন চিকেনটির ঝোল সাদা দেখাবে।

এতে কোনো পানি মেশাবেন না। দই আর পেস্টের সাথে চিকেনকে ভালোভাবে মিশিয়ে একেবারে অল্প আঁচে ৩০ মিনিটের জন্য প্যানটি ঢেকে রান্না করুন। মুরগি থেকে নিজে নিজেই পানি বেরোবে।

৩০ মিনিট পর দেখবেন সাদা ঝোলটি একটি সুন্দর জাফরানী রঙ ধারণ করেছে। কাশ্মীরি মরিচগুলোর কারণে এমনটি হয়। মনে রাখবেন, এটি কখনো প্রেসার কুকারে তাড়াতাড়ি রান্না করবেন না, অল্প আঁচে ধীরে ধীরে রান্না করা হলেই মশলাগুলো ঠিকমতো কষবে।

সবশেষে কয়েকটি আদা কুচি, স্প্রিং অনিয়ন এবং সামান্য লেবুর রস ছিটিয়ে নিন। লেবুর রস দেয়ার সাথে সাথে অবশ্যই চুলা বন্ধ করে নিবেন। চাইলে কিছু সবুজ ধনিয়া পাতা দিয়ে পরিবেশন করুন।

ব্যাস! তৈরি হয়ে গেল বিখ্যাত রেসিপি চিকেন সঞ্জু বাবা। উপভোগ করুন!

সূত্র: roar বাংলা

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : আয়ান আইটি